পুরস্কার পেয়েছেন নারী পুলিশ সদস্যরাও

  রওনক বিথী

১৩ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

‘জঙ্গি, মাদকের প্রতিকার বাংলাদেশ পুলিশের অঙ্গীকার’ সেøাগান সামনে রেখে গত ৮ থেকে ১২ জানুয়ারি পর্যন্ত পালিত হলো পুলিশ সপ্তাহ-২০১৮। ৮ জানুয়ারি সকাল ১০টায় রাজারবাগ পুলিশ লাইনস মাঠে পাঁচ দিনব্যাপী পুলিশ সপ্তাহের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে তিনি প্যারেড পরিদর্শন ও অভিবাদন গ্রহণ করেন। সকাল সাড়ে ১০টায় তিনি রাজারবাগের নবনির্মিত পুলিশ অডিটোরিয়াম উদ্বোধন করেন। তারপর প্রধানমন্ত্রী রাজারবাগে পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতির স্টল পরিদর্শন করে পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে কল্যাণসভায় অংশগ্রহণ করেন। পুলিশ সপ্তাহের এবারের প্যারেডে অধিনায়ক হিসেবে নেতৃত্ব দেন পুলিশ সুপার মো. মোয়াজ্জেম হোসেন। পুলিশ সপ্তাহ ২০১৮-এর ইংরেজির ধারাভাষ্য দেন রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার সালমা বেগম, পিপিএম-সেবা।

জানা যায়, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, অপরাধ দমনে সাহসিকতা, সেবা ও কর্মদক্ষতার স্বীকৃতি হিসেবে এ বছর ১৮২ জন পুলিশ সদস্যকে বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল (বিপিএম) ও প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল (পিপিএম) দেওয়া হয়েছে। পুরস্কারপ্রাপ্ত ১৮২ জন পুলিশ সদস্যের মধ্যে ৩০ জনকে পুলিশ মেডেল বিপিএম সাহসিকতা, ২৮ জনকে বিপিএম সেবা, ৭১ জনকে প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল পিপিএম সাহসিকতা ও ৫৩ জনকে পিপিএম সেবা পদক দেওয়া হয়েছে। প্রতিবারের মতো এবারও পুরস্কারপ্রাপ্ত হন নারী পুলিশ সদস্যরাও। এ বছর চারজন নারী পুলিশ সদস্য পুরস্কার পেয়েছেন। তারা হচ্ছেনÑ পুলিশ সদর দপ্তদরের ডিআইজি রৌশন আরা বেগম (ক্রাইম ম্যানেজমেন্ট), অ্যাডিশনাল এসপি জেসমিন কেকা (সংস্থাপন), ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) আসমা সিদ্দিকা মিলি (উইমেন সাপোর্ট সেন্টার) ও অ্যাডিশনাল এসপি বিনা রানী দাস। ১৯৭৪ সালে ১৪ জন নারী পুলিশ যোগদানের মধ্য দিয়ে পুলিশ বাহিনীতে নারী পুলিশ সদস্যরা কাজ শুরু করেন। বর্তমানে পুলিশ বাহিনীতে নারী পুলিশ সদস্যের সংখ্যা ১১ হাজার ৩৮ জন।

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে