যেখানে চলে মায়ের শাসন

  শান্তা মারিয়া

১২ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মানবসভ্যতার ঊষালগ্নে সমাজ ছিল মাতৃতান্ত্রিক। মা ছিলেন সমাজের প্রধান এবং তার ক্ষমতা ছিল নিরঙ্কুশ। নারীর সন্তান জন্মদানের ক্ষমতাকে তখন মনে করা হতো অলৌকিক। তাই আদিম সমাজব্যবস্থায় মাতৃদেবীর পূজা ছিল বহুল প্রচলিত। মায়ের নামেই পরিচিত হতো সন্তান। প্রাচীন বাংলার সমাজও মাতৃতান্ত্রিক ছিল বলে অনুমান করেন সমাজবিদরা। মহাভারতে প্রমীলা নামে নারীশাসিত রাজ্যের উল্লেখ রয়েছে, যেখানে বীর নারীরা যুদ্ধে অজেয় ছিলেন। গ্রেকো-রোমান পুরাণের অ্যামাজন রাজ্য বিখ্যাত। অ্যামাজন ছিল মাতৃশাসিত রাজ্য। অ্যামাজনদের রানি হিপ্পোলাইতি ছিলেন বীরযোদ্ধা। অ্যামাজনদের নারীযোদ্ধারা ট্রয় যুদ্ধে গ্রিক বাহিনীর বীরদের নাস্তানাবুদ করেছিলেন। আদিম মানবসমাজের সেই প্রথার অবশেষ এখনো রয়ে গেছে কিছু কিছু নৃগোষ্ঠীর মধ্যে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এখনো হাতেগোনা কয়েকটি মানবসমাজ রয়েছে, যেখানে মাতৃতান্ত্রিক প্রথা, মাতৃশাসন ও মাতৃধারা প্রচলিত রয়েছে। সেসব সমাজে নারীরাই শাসন করেন। বংশের নাম ও সম্পত্তির উত্তরাধিকার মা থেকে কন্যায় বর্তায়। সেখানে বিয়ের পর কনের সঙ্গে বর চলে যায় কনের মায়ের বাড়িতে। বিশ্বের মাতৃতান্ত্রিক সমাজগুলোর মধ্যে বিখ্যাত হলোÑ মসুও, মিনাংকাবায়ু, ব্রিব্রি, আকান, গারো, নাগোভিসি ইত্যাদি।

চীনের তিব্বত সীমান্তে ইউনান ও সিচুয়ান প্রদেশে মসুও জাতির বাস। মসুওরা যৌথ পরিবারে বাস করে। পরিবারপ্রধান হন নারী। ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা করেন নারী। সন্তান বড় হয় মায়ের পরিচয়ে। ‘আনুষ্ঠানিক বিয়ে’ ও দাম্পত্য বলতে তেমন কিছু নেই। পছন্দসই পুরুষের দ্বারা গর্ভধারণ করে নারী নিজের তত্ত্বাবধানেই সন্তানকে বড় করে তোলেন। অনেক সময় পিতৃপরিচয়ও অজ্ঞাত থাকে।

ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিম সুমাত্রায় মিনাংকাবায়ু জাতির বাস। এখানে মায়ের সঙ্গে ১০ বছর বয়স পর্যন্ত ছেলেসন্তানরা বাস করে, পরে তারা পুরুষদের জন্য নির্ধারিত আলাদা বসতিতে চলে যায় এবং নানারকম কাজে দক্ষ হয়ে প্রাপ্তবয়স্ক অবস্থায় ফিরে আসে। বিয়ের পর স্বামী রাতে স্ত্রীর সঙ্গে বাস করলেও দিনের বেলা মায়ের বাড়িতে চলে আসে। আফ্রিকার ঘানায় আকান জাতির মানুষই সংখ্যাগরিষ্ঠ। এখানে সন্তানের পরিচয় নির্ধারিত হয় মায়ের নামে। কোস্টারিকার লিমন প্রদেশে বসবাসরত ব্রিব্রি জাতির মধ্যে গোত্র প্রথা প্রচলিত। গোত্র পরিচালিত হয় নারীদের দ্বারা।

ভারত ও বাংলাদেশে বসবাসরত গারো ও খাসিয়া জাতির মানুষ মাতৃশাসনে পরিচালিত হয়। পরিবারের ছোট মেয়ে মায়ের সম্পত্তির উত্তরাধিকারী হয়। ভারত ও বাংলাদেশের সাঁওতালদের সমাজও মূলত নারীশাসিত।

নিউগিনির পশ্চিমে অবস্থিত সাউথ বোগেনভিলে দ্বীপে নাগোভিসি জাতির মানুষ বাস করে। সন্তান মায়ের নামে পরিচিত হয়। উত্তর আমেরিকার আদিবাসীদের মধ্যে হোপিসহ কয়েকটি গোত্র মাতৃপ্রধান। কয়েকজন সমাজবিদের মতে, বার্মায় (মিয়ানমার) পাডাউংস ও কায়াও গোত্র মাতৃতান্ত্রিক। উত্তর ভিয়েতনামে মধ্যযুগেও মাতৃশাসিত সমাজ ছিল বলে সমাজবিদরা মনে করেন।

 

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে