sara

যৌন নিপীড়ন রোধে তরুণ সমাজকে এগিয়ে আসার আহ্বান

  সাজেদা স্নিগ্ধা

১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এখনো কোনো নারী নির্যাতনের শিকার হলে প্রশ্ন তোলা হয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোনো যৌন হয়রানির ঘটনা ঘটলে আমরা ব্যথিত হই। একটি সমীক্ষায় এসেছে ২-১৮ বছর বয়সী মেয়েদের ৬৪ শতাংশ যৌন হয়রানির শিকার হয়। এটি দেশের সাফল্যের চিত্রের সঙ্গে বেমানান। নারী সভ্যতার বাহক, উন্নয়নের বাহক। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আলোকিত হওয়ার জায়গা। একে অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাবান হওয়ার জায়গা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হবে নিপীড়নমুক্ত ও আলোকিত শিক্ষাঙ্গন। এটাই আমার প্রত্যাশা। গত ২৫ অক্টোবর বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির যৌথ উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭১মিলনায়তন, ঢাকায় ‘তরুণ সমাজ এগিয়ে আসুন; উত্ত্যক্তকরণ, যৌন নিপীড়ন সম্মিলিতভাবে প্রতিরোধ করুন’ সেøাগান সামনে রেখে উত্ত্যক্তকরণ, যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন প্রতিরোধে হাইকোর্ট বিভাগের রায় বাস্তবায়ন বিষয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি আয়শা খানম। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির প্রক্টর অধ্যাপক ড. গোলাম মওলা চৌধুরী। বিশেষ আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন মহিলা পরিষদের ডিরেক্টর লিগ্যাল অ্যাডভোকেসি অ্যান্ড লবি অ্যাডভোকেট মাকছুদা আখতার। মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মানবিক ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদের সহযোগী ডিন এবং যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধবিষয়ক অভিযোগ কমিটির চেয়ারপারসন অধ্যাপক ড. ফারহানা হেলাল মেহতাব। মতবিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু, সহসাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদা রেহানা বেগমসহ অনেকেই। মতবিনিময় সভা সঞ্চালন করেন পরিষদের কেন্দ্রীয় লিগ্যাল এইড উপপরিষদের সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট দীপ্তি সিকদার।

গ্রন্থনা : সাজেদা স্নিগ্ধা

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে