একজন স্বপ্নচারী নারী উদ্যোক্তা

‘নারীদের আত্মপ্রকাশের প্ল্যাটফরম হিসেবে কাজ করছে উজ্জ্বলা’

আফরোজা পারভীন ,সিইও, রেড বিউটি স্যালন এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক, উজ্জ্বলা

  কেয়া আমান

০১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

তিনি শুধু নিজেই প্রতিষ্ঠিত হননি, কাজ করছেন নতুন নতুন নারী উদ্যোক্তা আত্মপ্রকাশের সুযোগ সৃষ্টিতেও। শুধু নিজেই আলোকিত হননি, আলোকিত করেছেন অসংখ্য নারীর জীবন। তিনি রূপ বিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন। যিনি বর্তমানে রেড বিউটি স্যালনের সিইও এবং বাংলাদেশের অন্যতম রূপচর্চা শিক্ষাকেন্দ্র উজ্জ্বলার সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আফরোজা পারভীন এমন একজন মানুষ, যিনি শুধু নিজেই স্বপ্ন দেখেন না, স্বপ্ন দেখাতে কাজ করছেন সেই সব নারীদেরও যারা পারিপার্শ্বিক অবস্থা এবং আত্মবিশ্বাসের কারণে আত্মপ্রকাশ করার সুযোগ পাননি।

উজ্জ্বলা প্রসঙ্গে আফরোজা পারভীন বলেন, ‘অনেক নারীই স্বপ্ন দেখেন বিউটি প্রশিক্ষণ নিয়ে স্বাবলম্বী হবেন। কিন্তু পারিবারিক অসহযোগিতা, অর্থনৈতিক সমস্যাসহ নানা কারণে তারা ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও স্বাবলম্বী হতে পারেন না। এ ধরনের নারীদের নিজের ভেতর লুকিয়ে থাকা সুপ্ত প্রতিভা কিংবা পিছিয়ে পড়া স্বপ্নপূরণ এবং ভবিষ্যৎ গড়ার স্বপ্ন দেখায় উজ্জ্বলা। একই সঙ্গে যারা স্বপ্ন দেখেন তাদের স্বপ্নপূরণের সম্ভাবনা এবং আত্মপ্রকাশের প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করছে উজ্জ্বলা।’

২০১৭ সালে রূপ বিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন এবং ব্যবসায়ী আদিত্য সোমের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় যাত্রা শুরু হয় ‘উজ্জ্বলা’র। এই অল্প সময়ে উজ্জ্বলার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন অসংখ্য নারী। আফরোজা পারভীন বলেন, “আমরা যখন উজ্জ্বলা প্রতিষ্ঠা করি তখন আমাদের লক্ষ্য ছিল এক বছরে এক হাজার নারীকে প্রশিক্ষণ দেব, কিন্তু এক বছর পর দেখা যায় সংখ্যাটা এক হাজার ১০০ জন। এক বছরে আমাদের দুটি বিভাগ এবং ২০টি জেলায় কাজ করার পরিকল্পনা ছিল, কিন্তু আমরা কাজ করেছি ছয়টি বিভাগ এবং ৩১টি জেলায়। এভাবে প্রতিটি ক্ষেত্রেই দেখা যায় এক বছরে আমরা আমাদের লক্ষ্যের চেয়েও অনেক বেশি এগোতে পেরেছি। আর এটা সম্ভব হয়েছে নারীদের কাজ করার আগ্রহ এবং চাহিদা থাকার কারণেই। আমরা শুধু প্রশিক্ষণ দিয়েই দায়িত্ব শেষ করিনি, আমরা তাদের নিয়মিত মনিটরিং করছি। তাই আমরা বছর শেষে নারীদের এগিয়ে আসার বিষয়টিকে উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিই। এরই ধারাবাহিকতায় আয়োজন করা হয় ‘উজ্জ্বলতা পথপ্রদর্শক ২০১৮’।”

গত ১৪ নভেম্বর আয়োজিত ‘উজ্জ্বলা পথপ্রদর্শক ২০১৮’ ছিল একটি বর্ণাঢ্য সংস্করণমূলক অনুষ্ঠান ও উজ্জ্বলার বর্ষপূর্তি। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন অঙ্গনের গণ্যমান্য ব্যক্তিরা। ‘উজ্জ্বলা পথপ্রদর্শক ২০১৮’তে ‘আমি উজ্জ্বলা’ শিরোনামে ছয় বিভাগের সেরা ছয় উজ্জ্বলাকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। যারা প্রত্যেকেই কঠিন বাধাবিঘœ পেরিয়ে উজ্জ্বলার প্রশিক্ষণে শুধু স্বাবলম্বীই হননি, দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। উজ্জ্বলার প্রশিক্ষণ নিয়ে বহু নারী এখন মাসে ভালো আয় করছেন। আমার বিশ্বাস উজ্জ্বলাদের জীবনের গল্পগুলো স্বাবলম্বী হতে উৎসাহ দেবে আরও অনেক নারীকে। উজ্জ্বলাদের দেখে তারাও সংকল্প করবেন, ‘আমি পারিÑ আমিও পারব’Ñ বলেন আফরোজা পারভীন।

‘উজ্জ্বলা পথপ্রদর্শক ২০১৮’ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের বিউটি ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম পথিকৃৎ জেরিনা আজগরকে আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হয়। যাদের হাত ধরে এ বিউটি ইন্ডাস্ট্রি তৈরি হয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম জেরিনা আজগরকে উজ্জ্বলার প্ল্যাটফর্মে ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রির পক্ষ থেকে সম্মাননা প্রদান করতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করেন আফরোজা পারভীন।

উজ্জ্বলার বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান আদিত্য সোম উদ্বোধন করেন ‘উজ্জ্বলা অ্যাপস’। অ্যাপসটির মাধ্যমে স্যালনে বিভিন্ন সার্ভিস নেওয়ার আগেই দেখে নেওয়া যাবে নতুন লুকে গ্রাহককে কেমন লাগবে, জানা যাবে বর্তমান বিউটি ফ্যাশন, স্বনামধন্য বিভিন্ন ব্র্যান্ডের কখন, কোন প্রোডাক্ট বাজারে আসছে ইত্যাদি বিষয়ে। এ ছাড়া ইতোমধ্যে ২৪ নারীকে উজ্জ্বলায় ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে, যারা আগামীতে সারাদেশে উজ্জ্বলার হয়ে কাজ করবেন এবং উজ্জ্বলাও তাদের জন্য কাজ করবে। আফরোজা পারভীন বলেন, ‘নারীদের শক্তিশালী এবং স্বাবলম্বী করতে আগামীর জন্য আমাদের আরও বেশকিছু পরিকল্পনা হাতে রয়েছে।’

আফরোজা পারভীন মনে করেন একজন নারী অর্থনৈতিক সংকট কোনো না কোনোভাবে কাটিয়ে উঠতে পারেন, কিন্তু পারিবারিক সাপোর্ট না থাকলে তার পক্ষে এগিয়ে যাওয়া খুব কঠিন। পাশাপাশি নারী উদ্যোক্তাদের জন্য ব্যাংক লোন আরও সহজ করা প্রয়োজন বলেও মনে করেন তিনি। রূপ বিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন স্বপ্ন দেখেন শুধু নারী নয়, একদিন নারীর কাজের পরিবেশটাও সুন্দর করে সাজিয়ে তুলবেন। যেখানে নারীরা আত্মমর্যাদা আর গর্বের সঙ্গে কাজ করতে পারবেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে