রান্না সহজ করতে প্যাকেটজাত মসলা

  অনলাইন ডেস্ক

০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কয়েকদিন পরই কোরবানির ঈদ। এ েেত্র মসলার বিকল্প নেই। কোরবানির যে পশুই হোক না কেন, রান্নায় নানা মসলা লাগবেই। তবে সময় পাল্টিয়েছে, শিল-পাটার কষ্টের পরিবর্তে হাতের কাছেই পাওয়া যাচ্ছে মরিচ, জিরা, হলুদ কিংবা বিভিন্ন মিক্স মসলার আয়োজন। কত রকমের মসলা পাবেন, দামদর বুঝে

কোথা থেকে কেনা যাবেÑ এ বিষয়ে বিস্তারিত লিখেছেন শাওয়াল নবী উজ্জল

কোরবানির ঈদের সময় গৃহিণীরা রান্না ছাড়া যেন অন্য সব কথা ভুলে যান। আর এই রান্নায় মূল উপকরণ, মানে মাংসের সঙ্গেই যেটি দরকার, তা হলো মসলা। হতে পারে সেটি মরিচের গুঁড়া, ধনিয়ার গুঁড়া অথবা অন্যান্য মিক্সের প্যাকেটজাত পণ্য। সাধারণ মসলা ছাড়াও অন্যান্য আইটেম যেমন রেজালা খেতে চাইলে রেজালার মসলা দরকার, টিকা কাবাব, শিক কাবাব বানাতে ব্যবহার করতে হবে কাবাব মসলা। রোস্ট রান্নায় রোস্ট মসলা! আবার মাংস ভুনা করতে দরকার পড়বে ভিন্নরকম মাংসের মসলা!

 

বিভিন্ন প্যাকেটজাত মসলার আয়োজন

প্যাকেটজাত মসলার ভেতরে বিভিন্ন ধরন রয়েছে। যেমন মরিচ, হলুদ, জিরা কিংবা ধনিয়ার গুঁড়া। আরও পাওয়া যাবে গরুর মাংসের মসলা, মুরগির মাংসের মসলা কিংবা মাছের মসলা, যেগুলো আলাদা আলাদাভাবেই প্যাকেটজাত করা হচ্ছে। এ ছাড়া রান্নাকে সহজ করতে বাজারে যথেষ্ট পরিমাণে রয়েছে বিরিয়ানি মসলা, রোস্ট মসলা, সবজি মসলা ইত্যাদি। বর্তমানে যেসব কোম্পানির মসলা বাজারে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে, এর মধ্যেÑ প্রাণ, রাঁধুনী, পিওর, রানী, আহমেদ, বিডি, আরকু ও নূরসহ অন্যান্য কয়েকটি ব্র্যান্ডের পণ্য দোকানে বিক্রি হচ্ছে।

 

প্রাণের মসলা

প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের কয়েক রকমের প্যাকেটজাত মসলা বাজারে বিক্রি হচ্ছে। সাধারণ মসলা ও মিক্স মসলা আকারে প্রাণের প্যাকেটজাত মসলাগুলো পাওয়া যাবে। সাধারণ প্যাকেটজাত মসলার মধ্যে ১৫ গ্রাম, ৫০ গ্রাম, ১০০ গ্রাম, ২০০ গ্রাম, ৫০০ গ্রাম ও ১ কেজি ওজনের মরিচের গুঁড়া, হলুদের গুঁড়া, ধনিয়া ও জিরার গুঁড়া পাওয়া যাবে। পেপার প্যাকের ২০০ গ্রাম ওজনের প্রাণ মরিচ, হলুদ ও ধনিয়ার গুঁড়া বিক্রি হচ্ছে বাজারে। বয়ামজাত গুঁড়া মসলার মধ্যে প্রাণের ২০০ গ্রাম ও ২৫০ গ্রামের মরিচ, হলুদ, ধনিয়া ও জিরার গুঁড়া দোকান থেকে কেনা যাবে। তিন আঙ্গিকে প্রাণের মিক্স মসলার প্যাকেট রয়েছে, এগুলো ফয়েল প্যাক, পেপার প্যাক ও বয়াম উপায়ে। ফয়েল প্যাক জাতীয় প্রাণের মসলার মধ্যে রয়েছে ২০ গ্রামের গরুর মাংসের মসলা, মুরগির মাংসের মসলা ও মাছের মসলা। পেপারজাত প্যাকেটের মধ্যে রয়েছে ১০০ ও ২০০ গ্রামের মাংসের মসলা, চিকেন কারি মসলা, মাছের মসলা ও ভেজিটেবল মিক্স প্যাকেট আলাদাভাবে কেনা যাবে। পেপার প্যাকেটজাত আরও মসলার মধ্যে ৪০ ও ৬৫ গ্রামের বোম্বে বিরিয়ানি মসলা, ১৫০ গ্রামের ফির মিক্স, ৬০ ও ২০০ গ্রামের হালিম মিক্স, ৪০ ও ২৫০ গ্রামের চটপটি মিক্স। এ ছাড়া ১০০ ও ২০০ গ্রামের চিকেন রোস্ট মসলা, ৫০ গ্রামের পিকেল মাংস মসলা, ৫০ গ্রামের বোরহানি মিক্স, ৫০ গ্রামের শিক কাবাব ও সামি কাবাব দোকানে পাওয়া যাবে। প্রাণের বয়ামজাত মসলার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে ২০০ গ্রামের কারি পাউডার, চিকেন মসলা ও মাংসের মসলা। এসব প্যাকেটজাত মসলার দাম ন্যূনতম ১৮ টাকা থেকে শুরু হয়ে ওপরে ২৫০ টাকা পর্যন্ত রয়েছে।

 

পিওর

এসিআই ফুডস লিমিটেডের পিওর ব্র্যান্ডের প্যাকেটজাত মসলা রয়েছে। প্যাকেটজাত সাধারণ মসলার মধ্যে ১৫ গ্রাম, ৫০ গ্রাম, ১০০ গ্রাম, ২০০ গ্রাম, ৫০০ গ্রাম ও ১ কেজি ওজনের পিওর গুঁড়া মরিচ, পিওর হলুদ, পিওর জিরা ও পিওর ধনিয়ার গুঁড়া কিনতে পাওয়া যাবে। মিক্সড মসলার মধ্যে ২৫ গ্রাম ও ১০০ গ্রামের পিওর মিট কারি মসলা, ১৫ গ্রামের পিওর গরম মসলা, ১৫০ গ্রামের ক্ষীর মিক্স ও ২০০ গ্রামের পিওর হালিম মিক্স অন্যতম। ২০ টাকা থেকে ২৫০ টাকায় এসব মসলা বিক্রি হচ্ছে।

 

রাঁধুনি

স্কয়ার গ্রুপের রাঁধুনি ব্র্যান্ডের মসলা বাজারে বিক্রি হচ্ছে। প্যাকেটজাত সাধারণ মসলার মধ্যে রয়েছে ১৫ গ্রাম, ৫০ গ্রাম, ১০০ গ্রাম, ২০০ গ্রাম, ৪০০ গ্রাম, ৫০০ গ্রাম ও ১ কেজি ওজনের রাঁধুনি মরিচের গুঁড়া, হলুদের গুঁড়া, জিরা ও ধনিয়ার গুঁড়ার প্যাকেট পাওয়া যাবে। একই সঙ্গে মিক্সড মসলার মধ্যে ন্যূনতম ২৫ গ্রাম থেকে ওপরে ১ কেজিসহ আরও কয়েকটি পরিমাণের প্যাকেটে রাঁধুনি বিফ মসলা, বিরিয়ানি মসলা, বোরহানি

হ শেষ পৃষ্ঠার পর

 

মসলা, চটপটি মসলা, চিকেন মসলা, কারি পাউডার, মাছের কারি মসলা, গরম মসলা, কাবাব মসলা, মিট কারি মসলা, মেজবানি বিফ মসলা, পাঁচফোড়ন, রোস্ট মসলা ও রাঁধুনি তেহারি মসলা কিনতে পাওয়া যাবে। এগুলোর দাম পড়বে পরিমাণ বুঝে ন্যূনতম ২০ থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত।

 

বিডি

বিডি ফুডের প্যাকেটজাত জিরা, হলুদ, ধনিয়া ও গুঁড়া মরিচের প্যাকেটজাত পণ্য বাজারে পাওয়া যাবে। ২৫ গ্রাম থেকে ওপরে ৫০০ গ্রামের বেশি পরিমাণের প্যাকেটে এ ব্র্যান্ডের মসলাগুলো বিক্রি হচ্ছে। অন্যান্য ব্র্যান্ডের মতোই দাম নিবে বিডি ফুডের মসলার।

 

আরকু

বাজারে বেশ কয়েক ধরনের আরকুর প্যাকেটজাত মসলার গুঁড়া ও মিক্সড মসলা কিনতে পাওয়া যাবে। ৫০ গ্রামের আরকু ধনিয়া গুঁড়া ২৬ টাকা, ৫০ গ্রাম মরিচের মসলা ২০ টাকা, এ ছাড়া আছে আরকু হলুদ ও জিরার গুঁড়া। আরকু শাহী গরুর মসলা, শাহী মুরগির মসলা ও আরকু শাহী মাছের মসলা রয়েছে বাজারে।

রানি

কোরবানির ঈদের রান্নার আয়োজনে পারটেক্স স্টার গ্রুপের রানি ব্র্যান্ডের বিভিন্ন ধরনের প্যাকেটজাত মসলা কিনতে পাওয়া যাবে। এর মধ্যে বিভিন্ন পরিমাণের রানি গরুর মাংসের মসলা, হলুদ, জিরা, মরিচ ও ধনিয়ার রানি ব্র্যান্ডের মসলা খুঁজে পাওয়া যাবে দোকানে। বড় সাইজের প্লাস্টিক বয়ামজাত হরেক রকমের রানি মসলা রয়েছে। এসব বয়ামজাত পণ্যের মধ্যে পাওয়া যাবে কারি পাউডার, দানা জিরা, গরম মসলা, কাবাব মসলা ও রানি মাংসের মসলা রয়েছে। আর এ ব্র্যান্ডের দামও ন্যূনতম ২০ টাকা শুরু, উপরে কয়েকশ টাকা পর্যন্ত।

 

কোথা থেকে কেনা যাবে

বাসার কাছের যে কোনো মুদি দোকানে গিয়ে ব্র্যান্ডের নাম উল্লেখ করে বললেই পাওয়া যাবে প্যাকেটজাত দরকারি সব মসলা। এ ছাড়া রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা কিংবা অন্যান্য জেলা শহরের সুপারশপ বা ডিপার্টমেন্টাল স্টোর, যেমনÑ মীনা বাজার, স্বপ্ন, আগোরা থেকে সহজেই কেনা যাবে গুঁড়া মসলা থেকে শুরু করে মিক্স মসলার সমাহার। তবে সুপারশপ থেকে কেনার বড় সুবিধা হলো, যে কোনো ব্র্যান্ডের সব পণ্যই এসব আউটলেটে একসঙ্গে খুঁজে পাওয়া যাবে।

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে