অ্যাপল ইভেন্ট ২০১৮

যা পেল প্রযুক্তি বিশ্ব

  অনলাইন ডেস্ক

১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রযুক্তিতে এক অনন্য

স্থান ধরে রেখেছে অ্যাপল। অ্যাপল মানেই পণ্যে নতুনত্বের ছোঁয়া। প্রতিবছর অ্যাপল তাদের নতুন নতুন সামগ্রী বাজারে আনে। তবে নতুনত্বের এই স্বাদ পেতে অ্যাপল ফ্যানদের অপেক্ষা করতে হয় প্রায় এক বছর। প্রতিবছর সেপ্টেম্বর মাসে বজারে আসে অ্যাপলের নতুন পণ্য। তাই এই মাসে অ্যাপলভক্তদের প্রত্যাশা থাকে একটু বেশি। সম্প্রতি ক্যালিফোর্নিয়ার স্টিভ জবস থিয়েটারে অনুষ্ঠিত হয় ‘অ্যাপল ইভেন্ট ২০১৮।’ ইভেন্টটি উপস্থাপনা করেন অ্যাপলের সিইও টিম কুকসহ আরও অনেকেই। এ নিয়ে আরও বিস্তারিত জানাচ্ছেন আজহারুল ইসলাম অভি

নতুন যা আসছে

টানা দুই ঘণ্টা বিভিন্ন পণ্য লঞ্চ করার মধ্য দিয়ে রাত একটায় ইভেন্টির পর্দা নামে। এই দুই ঘণ্টায় ঘোষণা আসে নতুন সব পণ্যের। চলুন দেখে নিই অ্যাপল এ বছর কী কী পণ্য আনছে।

আইফোন

এ বছর ‘আইফোন এক্সএস’, ‘আইফোন এক্সএস ম্যাক্স’ এবং ‘আইফোন টেন আর’ নামে মোট তিনটি আইফোন লঞ্চ করে প্রতিষ্ঠানটি। তিনটি স্মার্টফোনের ডিজাইন ঠিক আইফোন টেনের মতো দেখতে হলেও ফিচারে রয়েছে ব্যাপক পরিবর্তন। আইফোন এক্সএস ও এক্সএস ম্যাক্সের ডিভাইসের ডিসপ্লে সাইজ যথাক্রমে ৫ দশমিক ৮ ও ৬ দশমিক ৫ ইঞ্চি। ৪৫৮ পিপিআই ও এলইডি এইচডিআর ডিসপ্লে রয়েছে এতে। তা ছাড়া আছে সুপার রেটিনা ডিসপ্লে। আইফোন এক্সএস ও এক্সএস ম্যাক্সে স্টেইনলেস স্টিল বডি দেওয়া হয়েছে। এক্সএস ও এক্সএস ম্যাক্সে থাকবে সিঙ্গেল রিয়েল ক্যামেরা সিস্টেম। এই ক্যামেরায় থাকবে একটি ১২ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর। ফোনের সামনে থাকবে একটি ট্রু ডেপথ ফ্রন্ট ক্যামেরা। এর সঙ্গে থাকবে একাধিক ফেস আনলক সেন্সর।

নতুন তিনটি আইফোনেই ব্যবহার করা হয়েছে অ্যাপলের সেভেন ন্যানোমিটার টেকনোলজির এ ১২ বায়োনিক চিপসেট এবং ডুয়াল ই-সিম সিস্টেম।

নতুন মডেলের এক্সআর ফোনে একটি ৬ দশমিক ১ ইঞ্চি এজ-টু-এজ এলসিডি ডিসপ্লে ব্যবহার করেছে অ্যাপল। নতুন এই এলসিডি ডিসপ্লের নাম রাখা হয়েছে লিকুইড রেটিনা ডিসপ্লে। এ ছাড়া থাকবে ফেসআইডি, ট্রু ডেপথ ক্যামেরা। আইফোন এক্সআরে থাকবে অ্যালুমিনিয়াম বডি। ৬৪ জিবি, ১২৮ জিবি আর ২৫৬ জিবি স্টোরেজ সংস্করণে পাওয়া যাবে নতুন আইফোন এক্সআর।

অ্যাপল ওয়াচ

ভক্তদের সব অভিযোগ মিটিয়ে প্রতিষ্ঠানটি এবার নতুন করে ডিজাইন করেছে অ্যাপল ওয়াচ ৪-এর। এতে রয়েছে চতুর্থ প্রজন্মের এস৪ চিপসেট, ফুল ভিউ রেটিনা ডিসপ্লে, ডিজিটাল ক্রাউন উইথ হেপটিক্স, ফল ডিটেকশন টেকনোলজি এবং ইসিজি। স্মার্টওয়াচটি গোল্ড, সিলভার এবং স্পেস গ্রে এই তিনটি কালারে পাওয়া যাবে। অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ ৪-এর মূল্য শুরু ৩৯৯ ইউএস ডলার থেকে। এর সেলুলার ভার্সনটির দাম পড়বে ৪৯৯ ইউএস ডলার, ওয়াচটি ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে আগাম পরমার্শ দেওয়া যাবে এবং ওয়াচটি বাজারে আসবে ১৭ সেপ্টেম্বর।

আইফোন এবং অ্যাপল ওয়াচের পাশাপাশি চলতি মাসে আইওএস ১২ ও ওয়াচওএস ৪ রিলিজ করার ঘোষণা দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে