x

সদ্যপ্রাপ্ত

  •  বিপিএল এর পঞ্চম আসরের শিরোপা জিতল রংপুর রাইডার্স। মাশরাফির হাতে চতুর্থ ট্রফি

দলীয় প্রধান থেকে বহিষ্কার

  আমাদের সময় ডেস্ক

২০ নভেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জিম্বাবুয়ের ক্ষমতাসীন আফ্রিকান ন্যাশনাল ইউনিয়ন-প্যাট্রিয়টিক ফ্রন্টের (জানু-পিএফ) নেতা এবং দেশটির প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে ও তার স্ত্রী গ্রেস মুগাবেকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। মুগাবে দলের পলিটব্যুরোর সদস্য ও গ্রেস জানু-পিএফ ওমেনস লিগের প্রধান ছিলেন।

সম্প্রতি বরখাস্ত হওয়া দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নানগাগওয়াকে দলীয় প্রধানের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। গতকাল বিশেষ কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয় বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

জানু-পিএফ দলের বৈঠকে অংশ নেওয়া এক নেতা রয়টার্সকে বলেন, মুগাবেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। নানগাগওয়া এখন আমাদের নতুন নেতা। ১৯৮০ সাল থেকে জিম্বাবুয়ের ক্ষমতায় রয়েছেন ৯৩ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে। দুই সপ্তাহ আগে প্রেসিডেন্ট মুগাবে তার ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নানগাগওয়াকে বরখাস্ত করলে চলমান সংকটের সূচনা হয়। নানগাগওয়াকে তার সম্ভাব্য উত্তরসূরি মনে করা হচ্ছিল। কিন্তু ভাইস প্রেসিডেন্টকে বরখাস্ত করে মুগাবে তার স্ত্রী গ্রেসকে ক্ষমতায় বসানোর পরিকল্পনা করেন। এর পরই হয় রক্তপাতহীন ‘অভ্যুত্থান’।

গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে জিম্বাবুয়ের সেনাবাহিনী ক্ষমতার নিয়ন্ত্রণ নিলেও সেনাশাসন জারি করেনি। সংবিধান স্থগিত কিংবা প্রেসিডেন্টকেও পদচ্যুত করেনি। এমনকি সেনাবাহিনী শুরু থেকেই দাবি করছে, এই পদক্ষেপ কোনোভাবেই সরকারের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া নয়।

শনিবার রাজধানী হারারেতে হাজার হাজার লোক প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে যুগের শেষ হওয়ায় উৎসবে মাতে। পাশাপাশি ‘সেনা অভ্যুত্থানের’ প্রশংসাও করে তারা। এ সময় প্রেসিডেন্ট মুগাবের পদত্যাগের দাবিতে সোচ্চার হয় দেশবাসী।

সেনাবাহিনী ক্ষমতার নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর থেকে কার্যত ‘গৃহবন্দি’ আছেন মুগাবে। এর মধ্যেই শুক্রবার এক সমাবর্তনে উপস্থিত হওয়ার মধ্য দিয়ে ‘অভ্যুত্থানের’ পর প্রথম জনসম্মুখে আসেন তিনি। ধারণা করা হচ্ছে, এমারসন নানগাগওয়াকে প্রেসিডেন্ট করার প্রক্রিয়াই করছে দেশটির সেনাবাহিনী।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে