উন্নয়ন আর নিরাপত্তায় ছাড় নয়

  নিজস্ব প্রতিবেদক

০৮ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ০৮ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:০৭ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসি) ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ওয়াহিদুল হাসান মিল্টন। আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নির্বাচিত ওই কাউন্সিলরের সঙ্গে এলাকার সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে কথা হয় আমাদের সময়ের প্রতিবেদকের।

ওয়াহিদুল হাসান মিল্টন আমাদের সময়কে বলেন, রাজধানীর অন্য যে কোনো এলাকা থেকে আমরা অনেকটা এগিয়ে। উন্নয়ন আর নিরাপত্তায় কোনো রকম ছাড় দেওয়া হয় না। তিনি বলেন, আমার ওয়ার্ডে কোনো ভাঙাচোরা রাস্তা নেই। কিছুটা জলাবদ্ধতা থাকলেও বেশ কয়েকটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। আগামী বছর থেকে তা আর থাকবে না। জলসবুজ প্রকল্পের আওতায় জোড়াপুকুর মাঠের সংস্কারকাজ চলছে। একটি আধুনিক সুবিধাসম্পন্ন খেলার মাঠ উপহার দেওয়া হবে এলাকাবাসীকে। এ ছাড়া দুটি কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণে সব প্রক্রিয়া শেষের পথে।

কয়েকটি সড়কের বিভিন্ন অংশ দখল হয়ে যাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে মিল্টন বলেন, কয়েকটি এলাকায় দখলের ঘটনা ঘটেছে। বিভিন্ন সময় উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হলেও পরে আবার আগের রূপেই ফিরে যাচ্ছে। এ কারণে মোবাইল কোর্টও পরিচালনা করেছি বিভিন্ন সময়ে। মানুষকে নিয়ে রাজনীতি করার কারণে তাদেরও বিভিন্ন বিষয় দেখতে হয়। তাই অনেক সময় মানবিক কারণে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করি না। অবৈধ স্থাপনার বিষয়ে তিনি বলেন, এসব অবৈধ স্থাপনা বা দখলে আমার কোনো ভূমিকা নেই। আমার অনুসারীরাও এসব কাজে জড়িত নন। স্থানীয় কতিপয় ব্যক্তি দলের নাম ভাঙিয়ে এসব কাজ করে।

ওয়ার্ডটিতে মশার প্রকোপ নেই উল্লেখ করে মিল্টন বলেন, আমাদের ওয়ার্ড শতভাগ মশামুক্ত। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার পাশাপাশি এলাকাটিকে আরও আধুনিক ও বাসযোগ্য করতে বেশ কয়েকটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, রাস্তাঘাট সংস্কারের পাশাপাশি নতুন কবরস্থান নির্মাণ করা হয়েছে। স্থাপন করা হয়েছে ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট ওয়্যার হাউস। রয়েছে একটি হিমঘরও। এ ছাড়া ওয়ার্ডটি শতভাগ এলইডি লাইট ও সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় রয়েছে বলেও জানান তিনি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে