সমস্যা থাকলেও সম্ভাবনা অনেক

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৪ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:৩০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. হামিদুল হক শামীম। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সমর্থন নিয়েই তিনি নির্বাচিত হন। ওয়ার্ডের সমস্যা, সম্ভাবনা ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়েই তার সঙ্গে কথা হয় আমাদের সময়ের।

নিজের কাজের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করে হামিদুল হক শামীম বলেন, সমস্যা সব ওয়ার্ডেই আছে। তবে ছোটখাটো কিছু সমস্যা ছাড়া এই ওয়ার্ডের সার্বিক অবস্থা অন্যগুলোর তুলনায় বেশ ভালো। পুরনো সমস্যা সমাধান করে অনেক কিছুই নতুন করে সাজানো হচ্ছে। আমি আমার কাজ সৎভাবেই করে যাচ্ছি। এই ওয়ার্ডের সম্ভাবনা অনেক।

বিদ্যুৎ, পানি ও গ্যাস সম্পর্কে তিনি বলেন, অন্য যেকোনো ওয়ার্ডের তুলনায় আমার ওয়ার্ডে এগুলোর সরবরাহ নিরবচ্ছিন্ন। এ নিয়ে এলাকাবাসীর কোনো অভিযোগ পাবেন না। নিরাপত্তা নিশ্চিতে তার নানা পরিকল্পনা ও উদ্যোগের কথা জানিয়ে কাউন্সিলর বলেন, এলাকায় এখন পর্যন্ত ৫৮৪টি এলইডি বাতি লাগানো হয়েছে। আরও লাগানো হবে।

অবৈধ স্থাপনার বিষয়টি স্বীকার করে তিনি অবশ্য বলেছেনÑ প্রতিবন্ধকতা আছে, থাকবে। আমরা চাইলেও এগুলো বন্ধ করতে পারি না। তবে নিয়মিত উচ্ছেদকাজ পরিচালনা করা হয়। কিন্তু পরে আবারও তা গড়ে উঠছে। চাঁদা আদায়ের বিষয়ে জানতে চাইলে শামীম বলেনÑ কে কোথায় কত টাকা তুলল, সে ব্যাপারে আমি কিছু জানি না। আমি কিছু বলতেও পারব না। নানা জটিলতা আছে, সমস্যাও আছে। আমার ব্যাপারে যদি জিজ্ঞেস করেন, তাহলে আমি বলতে পারি এসব অবৈধ স্থাপনা বা দখলে আমার কিংবা আমার কর্মীদের কোনো ভূমিকা নেই।

ওয়ার্ডে ময়লা-আবর্জনা ও পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা নিয়ে চাপে থাকতে হয় জানিয়ে হামিদুল হক বলেন, ওয়ার্ডের পরিচ্ছন্নতায় ৭১ কর্মী নিয়মিত কাজ করছেন। এ ছাড়া মসজিদে মাইকিং করেও এলাকাবাসীকে রাস্তা ও বাসা-বাড়ির ধারে ময়লা না ফেলার জন্যে নিয়মিত উদ্বৃদ্ধ করা হয়। জমে থাকা আবর্জনা নিয়মিত পরিষ্কার ও মশা নিয়ন্ত্রণেও সর্বত্র মশানাশক ওষুধ ছিটানো হয় বলেও জানান কাউন্সিলর।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
ashomoy-todays_most_viewed_news