এক বছরে সড়কে প্রাণহানি বেড়েছে ২২.২ শতাংশ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৪ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:১১ | প্রিন্ট সংস্করণ

২০১৬ সালের তুলনায় গত বছর সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়েছে ২২ দশমিক ২ শতাংশ। একই সঙ্গে দুর্ঘটনা ১৫ দশমিক ৫ এবং আহতের হার ১ দশমিক ৮ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৭ সালে ৪ হাজার ৯৭৯টি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন ৭ হাজার ৩৯৭ জন এবং ১৬ হাজার ১৯৩ জন আহত হন। এসব দুর্ঘটনায় আর্থিক হিসাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জিডিপির প্রায় দেড় থেকে দুই শতাংশ। এমন তথ্যই তুলে ধরেছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। গতকাল সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির গোলটেবিল মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন ডেকে সংগঠনটি এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদনও প্রকাশ করে।

প্রতিবেদনে দেখা যায়, গেল বছর ১ হাজার ২৪৯টি বাস, ১ হাজার ৬৩৫টি ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান, ২৭৬টি হিউম্যান হলার, ২৬২টি কার, জিপ, মাইক্রোবাস; ১ হাজার ৭৪টি অটোরিকশাা, ১ হাজার ৪৭৫টি মোটরসাইকেল, ৩২২টি ব্যাটারিচালিত রিকশা, ৮২৪টি নসিমন-করিমন দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। আর দুর্ঘটনার ৪২ দশমিক ৫ শতাংশ পথচারীকে চাপা, ২৫ দশমিক ৭ শতাংশ মুখোমুখি সংঘর্ষ, ১১ দশমিক ৯ শতাংশ খাদে পড়ে, ২ দশমিক ৮ শতাংশ চাকায় ওড়না পেঁচিয়ে হয়েছে। মোট ৪ হাজার ৯৭৯টি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন ৭ হাজার ৩৯৭ জন, আহত হন ১৬ হাহার ১৯৩ জন। আহতদের মধ্যে হাত-পা বা অন্য কোনো অঙ্গ হারিয়ে চিরতরে পঙ্গুত্ব বরণ করেছেন ১ হাজার ৭২২ জন।

সমিতির মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী প্রতিবেদনটি তুলে ধরেন। দেশের জাতীয়, আঞ্চলিক ও অনলাইন সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত সড়ক দুর্ঘটনার সংবাদ মনিটরিং করেই প্রতিবেদনটি তৈরি করে সংগঠনটি। সব শেষে সড়ক দুর্ঘটনারোধে বেশকিছু সুপারিশও করেছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপ¯িত ছিলেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান, পিএসসির সাবেক চেয়ারম্যান ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধ সংগঠন ফুয়ারার সভাপতি ইকরাম আহম্মেদ, সাংবাদিক আবু সাঈদ খান, বুয়েটের দুর্ঘটনা গবেষণাকেন্দ্রের সহকারী অধ্যাপক কাজী সাইফুন নেওয়াজ, সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট হুমায়ন কবির হিরু, মুক্তিযোদ্ধা মো. হারুন অর রশিদ প্রমুখ।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে