বিশ্ব ইজতেমায় অংশ না নিয়ে ঢাকা ত্যাগ

আগামী বছর আসবেন সাদ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৪ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:১৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

তবলিগ জামাতের একাংশ, হেফাজত ও কওমিপন্থি আলেমদের বিরোধিতার মুখে বিশ্ব ইজতেমায় অংশ না নিয়েই অবশেষে ঢাকা ছেড়েছেন ভারতের তবলিগ জামাতের মুরব্বি মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভি। গত তিন বছর বিশ্ব ইজতেমায় আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করে আসছেন মাওলানা সাদ। এর আগে হেদায়েতি বয়ান দিতেন। সে অনুযায়ী চলতি বছর ইজতেমায় যোগ দিতে ১০ জানুয়ারি বাংলাদেশে আসেন।

মাওলানা সাদকে বাংলাদেশে আনার পক্ষে সোচ্চার থাকা তবলিগ জামাতের শূরা সদস্য সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলাম আমাদের সময়কে জানান, তবলিগ জামাতের সারা বিশ্বের আমির মাওলানা সাদ বাংলাদেশ ত্যাগ করেছেন। অনেক কষ্ট নিয়ে তিনি ঢাকা ত্যাগ করেন। সারা বিশ্বের মুসলিমের কাছে নেতিবাচক বার্তা পৌঁছে দেওয়া হলো মিথ্যা বিরোধিতা করে।

জানা যায়, গতকাল দুপুর পৌনে ১২টার দিকে মাওলানা মোহাম্মদ সাদ তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে ঢাকা ছাড়েন। বিতর্কিত ও আপত্তিকর মন্তব্যের কারণে সমালোচিত হন দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজের এ জিম্মাদার।

কাকরাইলে তবলিগ জামাতের কেন্দ্র বলে পরিচিত মসজিদ সূত্র জানিয়েছে, শুক্রবারের জুমার নামাজের খুতবায় বিতর্কের বিষয়টি আবার খোলাসা করেন মাওলানা সাদ। সেখানে তিনি তার বক্তব্যর ভুল ব্যাখা করা হয়েছে বলে জানিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন। এর আগেও তিনি লিখিতভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছিলেন।

তবলিগ জামাতের এক শূরা সদস্য আমাদের সময়কে বলেন, মাওলানা সাদকে বিরোধিতা একটি সুদূরপ্রসারী ষড়যন্ত্র। বাংলাদেশে আসার পরও তাকে ইজতেমা ময়দানে যেতে দেওয়া হয়নি। তবে তিনি আবার আসবেন। ইজতেমা ময়দানে আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন। মাওলানা সাদের পরবর্তী বছরের আগমনের বিষয়টি সমঝোতা কিনাÑ এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, সব বিষয় বলা ঠিক হবে না। তবে আমরা ঝামেলা বাড়াতে চাইনি। হুজুর অনেক কষ্ট পেয়েছেন। তবলিগ জামাতের বিরুদ্ধে একটি পক্ষ মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের লেলিয়ে দিয়েছেন, যা কাম্য ছিল না। এর পরও আমরা সহনশীল আচরণ করেছি। তবে পরবর্তী বছর তিনি আবার আসবেন। হেদায়েতি বক্তব্য দেবেন। মোনাজাত পরিচালনা করবেন।

তবলিগ জামাতের কেন্দ্রীয় পর্যায়ের সদস্য রাফিউদ্দিন আহমেদ বলেন, শুক্রবারের জুমার নামাজে তিনি বিষয়টির জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তার বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করে মানুষকে লেলিয়ে দেওয়া হয়েছে। মাওলানা সাদ সারা বিশ্বের তবলিগের আমির। এভাবে অপমান করে তাকে কষ্ট দিয়ে কোনো লাভ হবে না।

তবলিগ জামাতের শূরা সদস্য সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলাম বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্র থেকে মাওলানা সাদের পক্ষে চিঠি পাঠিয়েছিল। সারা বিশ্বের মুসলিমের কাছে সম্মানীয় ব্যক্তিকে অপমান করা হয়েছে। হয়তো সবাই ভুল বুঝতে পারবে। আবার সসম্মানে তাকে নিয়ে আসা হবে বিশ্ব ইজতেমায়।

তবলিগ জামাতের দুপক্ষের এখনো চূড়ান্ত সমঝোতা হয়নি। সমঝোতা না হওয়ায় একপক্ষ এখনো তবলিগ জামাতের বিশ্ব ইজতেমায় যোগদান করেনি। এ নিয়ে বেশ কয়েকবার তবলিগের মুরব্বিরা মিটিং করেছেন। এ বিষয়ে সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি নিয়ে এখন কথা বলা উচিত হবে না। আমরা আলোচনা করছি মুরব্বিদের সঙ্গে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে