হজের খরচ বাড়ছে

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২২ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এবার আরও বেশি বাংলাদেশিকে হজ পালনের সুযোগ দিতে অনুরোধ জানালেও সম্মতি দেয়নি সৌদি সরকার। তাই ২০১৮ সালে হজ পালনের সুযোগ পাবেন ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। এমন তথ্যই জানিয়েছেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। উল্টো হজে যাওয়ার খরচ কিছুটা যে বাড়ছে, তা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে জানা গেছে।

এ বিষয়ে অবশ্য ধর্মমন্ত্রী বলেন, এ বছর সৌদি সরকার সেখানকার সব পণ্যে ৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করেছে, যা ১ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হয়েছে। ফলে আবাসন, খাদ্য ও পরিবহন খাতে এর প্রভাব পড়বে। তবে আমাদের দেশের হজযাত্রীদের ওপর যাতে এর প্রভাব না পড়ে, ধর্ম মন্ত্রণালয় ওই চেষ্টাই করছে।

গতকাল সচিবালয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে ধর্মমন্ত্রী বলেন, হজের প্যাকেজ এখনো নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি। কারণ সৌদি সরকারের ৫ শতাংশ ভ্যাটের কোথায় কোথায় ছাড় পাওয়া যাবে, তা এখনো স্পষ্ট নয়। সেটি নিশ্চিত হওয়ার পরই আমরা প্যাকেজ নির্ধারণ করতে পারব। এ জন্য সপ্তাহ দুয়েক সময় লাগতে পারে। তিনি বলেন, ১৪ জানুয়ারি রাজকীয় সৌদি সরকারের সঙ্গে হজচুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। এ বছর বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যেতে পারবেন। তাদের মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন ৭ হাজার ১৯৮ জন। বাকি ১ লাখ ২০ হাজার বাংলাদেশি যাবেন বেসরকারি ব্যবস্থাপনায়। তবে হজযাত্রীর কোটা বাড়াতে আবেদন করেছি। সৌদি সরকার তা বিবেচনা করবে বলে জানিয়েছে। এ ছাড়া প্রতি বছরের মতো এবারও ৫০ শতাংশ হজযাত্রী পরিবহন করবে বাংলাদেশ বিমান এবং বাকি ৫০ শতাংশ সৌদি এয়ারলাইন্স।

এক প্রশ্নের জবাবে অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বলেন, হজে যেতে প্রি-রেজিস্ট্রেশন করেছেন ২ লাখ ২৯ হাজার ৭৬৪ জন। বাছাই করে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে রেজিস্ট্রেশন শুরুর কথা রয়েছে।

ধর্মমন্ত্রী বলেন, এ বছর ভারত থেকে ৫ হাজার থেকে ৭ হাজার হজযাত্রী জাহাজে সৌদি আরব যেতে পারবেন। এ বিষয়ে তাদের অনুমতি দিয়েছে সৌদি সরকার। আমরাও জাহাজে করে হজযাত্রী পাঠানোর প্রস্তাব করেছিলাম। কিন্তু সৌদি সরকার অনুমোদন দেয়নি। কারণ মুম্বাই থেকে জাহাজে করে সৌদি যেতে সময় লাগে মাত্র ৩ থেকে ৪ দিন। কিন্তু বাংলাদেশের সময় লাগবে ১৭ থেকে ১৮ দিন। খরচ কমানোর জন্যই এ আবেদন করা হয়েছিল।

অন্য আরেক প্রশ্নের জবাবে ধর্মমন্ত্রী বলেন, ২৪৫টি এজেন্সির বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। এসব অভিযোগের তদন্ত চলছে। প্রতিবেদন পাওয়ার পরই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. আনিসুর রহমান ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে