খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি আজ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পাঁচ বছরের দ-প্রাপ্ত জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের ওপর শুনানি আজ। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের বেঞ্চে আজ রবিবার দুপুর ২টায় এ আবেদনের শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

এর আগে গত ২২ ফেব্রুয়ারি এ মামলায় তার জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়। ৮৮০ পৃষ্ঠার এ জামিনের আবেদনে ৩১টি যুক্তি তুলে ধরা হয়। জামিন আবেদনে বলা হয়, আবেদনকারীর বয়স ৭৩ বছর। তিনি শারীরিক বিভিন্ন জাটিলতায় ভুগছেন। তিনি ৩০ বছর ধরে গেঁটে বাত, ২০ বছর ধরে ডায়াবেটিস, ১০ বছর ধরে উচ্চ রক্তচাপ ও আয়রন স্বল্পতায় ভোগেন। ১৯৯৭ সালে তার বাঁ হাঁটু প্রতিস্থাপন করা হয়েছে এবং ডান পায়ের হাঁটু ২০০২ সালে প্রতিস্থাপন করা হয়। হাঁটু প্রতিস্থাপনের কারণে তার গিঁটে ব্যথা হয়, যা প্রচ- যন্ত্রণাদায়ক। এমনকি হাঁটাহাঁটি না করার ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ রয়েছে। শারীরিক এসব জটিলতার কারণ বিবেচনায় তার জামিন মঞ্জুরের সবিনয় আরজি জানাচ্ছি।

আরেকটি যুক্তিতে বলা হয়েছে, উপমহাদেশ এবং দেশের উচ্চ আদালতগুলোয় দীর্ঘ ঐতিহ্য রয়েছে, যখন আসামি একজন নারী হয় তখন তার অনুকূলে জামিন বিবেচনা করা হয়ে থাকে। সে বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে আবেদনকারীর জামিন আবেদন মঞ্জুর করা হোক। আরেক যুক্তিতে বলা হয়েছে, ২০০৭-০৮ সালে সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বীদের নির্মূলে যে পদক্ষেপ নিয়েছিল এ মামলাটি তারই অংশ। তা ছাড়া মামলার প্রথম অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা জামিন আবেদনকারীর বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগের সত্যতা না পেয়ে ফাইনাল প্রতিবেদন দাখিল করে। দ্বিতীয় তদন্ত কর্মকর্তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ও প্রভাবিত হয়ে তাকে আসামি করে। জামিন আবেদনকারী বাংলাদেশের তিনবারের প্রধানমন্ত্রী এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির চেয়ারপারসন। বিচারিক আদালত তার বিষয়টি উপেক্ষা করেছে। তা ছাড়া যে মামলায় তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে তা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

গত ২২ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের উপরোক্ত বেঞ্চে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন ও সাজা বাতিল চেয়ে করা আপিলের গ্রহণযোগ্যতার শুনানি শুরু হয়। আদালত তার আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে অর্থদ- স্থগিত করেন। পাশাপাশি মামলার নথি তলব করেন। পরে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের সময় আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের ওপর রবিবার বেলা ২টায় শুনানির জন্য ধার্য করেন। সে অনুযায়ী খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদনটি রবিবারের কার্যতালিকার ৩৬ নম্বর ক্রমিকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় ঘোষণা করেন। রায়ে খালেদা জিয়ার শরীরিক অবস্থা, বয়স এবং সামাজিক পরিচয় বিবেচনা করে দ-বিধির ৪০৯/১০৯ ধারায় ৫ বছর সশ্রম কারাদ- প্রদান করেন। এ ছাড়া তারেক রহমানসহ অপর পাঁচ আসামিকে ১০ বছর করে কারাদ- দেওয়া হয়। সব আসামির দ-ের পাশাপাশি ২ কোটি, ১০ লাখ, ৭১ হাজার, ৬৪৩/৮০ টাকা অর্থদ- দেওয়া হয়। এই অর্থ ৬০ দিনের মধ্যে রাষ্ট্রের অনুকূলে আদায়ের নির্দেশ দেওয়া হয় রায়ে। গত ১৯ ফেব্রুয়ারি বিচারিক আদালতের এ রায়ের অনুলিপি প্রকাশিত হয়। পরের দিন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা হাইকোর্টে আপিল দায়ের করেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে