আইফেল টাওয়ারে জনসমুদ্র

  অনলাইন ডেস্ক

১২ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১২ জুলাই ২০১৮, ০০:৪৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্যারিসে তখনো থমথমে ভাব। প্রথমার্ধে গোল হয়নি। ফ্রান্স স্কয়ার, আইফেল টাওয়ার থেকে শুরু করে মনুমেন্ট অব প্যারিসে লাখো মানুষ জড়ো হয়েছিলেন। বিশেষ দিনে ফরাসিরা এখানে আসেন। ১২ বছর পর আবার ফাইনালে ফ্রান্স। ৫১ মিনিটে উমতিতির গোলে জনসমুদ্র আনন্দমেলায় পরিণত হয়। রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে বেলজিয়ামকে ১-০ গোলে হারিয়ে ফ্রান্স আবার ফাইনালে উঠেছে। জয়ের পর ফ্রান্সের কোচ দেশম বলেছেন, আমরা অনেক পথ পাড়ি দিয়ে এসে হতাশ হতে চাই না। ফাইনাল ম্যাচ সবসময় কঠিন।

আমরা জানি এখানে আমাদের শতভাগ দিতে হবে। বেলজিয়াম ভালো খেলেছে। আমরা বেলজিয়ামের জন্য শুভকামনা জানাই। আর আমাদের কাজ শেষ হয়নি।’

প্রথম সেমিফাইনাল ম্যাচ। বিশ্বকাপের এমন ম্যাচে ফ্রান্সের কোচ হিসেবে দিদিয়ের দেশমের ঘেমে-নেয়ে ওঠার কথা। তবে এই চাপ তো আগেও সামলেছেন। অবশ্য তখন ছিলেন অধিনায়ক। ১৯৯৮ সালে তার নেতৃত্বে প্রথম বিশ্বকাপ জিতেছিলেন ফরাসিরা। ২০ বছর পর আবারও ফ্রান্স ফাইনালে উঠেছে। একটি রেকর্ড ও ইতিহাস অপেক্ষা করছে। মারিও জাগালো ও ফ্রেঞ্জ বেকেনবাওয়ার খেলোয়াড় এবং কোচ হিসেবে বিশ্বকাপ জিতেছেন। মস্কোর লুজনিকিতে ১৫ জুলাই ফ্রান্স শিরোপা জিতলে এ রেকর্ডে দেশমের নামটিও যোগ হবে।

বেলজিয়ামের ম্যাচটিতে স্নায়ুক্ষয়ী লড়াই হয়েছে। উমতিতি খেলার পর সংবাদ সম্মেলনে আসেন। এ ছাড়া সাংবাদিকদের সঙ্গে মিক্সড জোনেও কথা বলেন। উমতিতি বেশ সপ্রতিভ। তিনি বলেন, আমি ভাবিনি এমন ম্যাচে গোল করব। আসলে বলটি ভেসে আসার সময় আমার মাথা কাজ করেনি। এর পর দেখি আমার নাগালে। হেড করি। গোল হওয়ার পর মনে হলো আমি বিশাল কোনো কিছু করে ফেলেছি। আসলে বেলজিয়াম ভালো দল। এই ম্যাচে সব কিছুই নাগালে ছিল। ম্যাচটি হারতে চাইনি। তবে ফাইনালের জন্য প্রস্তুত রয়েছি।

দিদিয়ের দেশম বেশ খুশি। ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, আমি আসলে রেকর্ড আর ইতিহাস নিয়ে ভাবছি না। আমি তৃতীয় হিসেবে রেকর্ডটি করতে পারলে ভালো হবে। তবে আমি ফাইনালে ফ্রান্সকে জয়ী দেখতে চাই। আমার এটিই চাওয়া। ফ্রান্সের হয়ে একটি বিশ্বকাপ জিতেছি। আরও একবার কেন নয়। আমার চাওয়া অনেক বড়। ছেলেদের সব কৃতিত্ব দিতে চাই। অনেক পরিশ্রম করেছে সবাই। তার ফল তারা পেয়েছে। আমরা এখন ফাইনাল নিয়ে ভাবছি। এখান থেকে আমরা খালি হাতে যেতে চাই না।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
ashomoy-todays_most_viewed_news