হাসিনা-মোদি বৈঠক চলতি মাসেই

  কূটনৈতিক প্রতিবেদক

১৬ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৬ আগস্ট ২০১৮, ০৯:০৮ | প্রিন্ট সংস্করণ

চলতি মাসেই বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। চতুর্থ বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে উভয় নেতা আগামী ৩০ ও ৩১ আগস্ট নেপালে অবস্থান করবেন বলে জানা গেছে। ফলে সাইড লাইনে বৈঠকে বসবেন এ দুই নেতা।

পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক আমাদের সময়কে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিমসটেকের শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নেবেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রীও ওই সম্মেলনে যোগ দেবেন। স্বাভাবিকভাবেই দুই দেশের শীর্ষনেতার মধ্যে বৈঠক হবে।

এক বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি। সাম্প্রতিক সময়ে আসামের নাগরিকত্ব নিয়ে সৃষ্ট জটিলতার মধ্যে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে গত মে মাসে শেখ হাসিনার পশ্চিমবঙ্গে শান্তিনিকেতন সফরের সময়ে দুই নেতার মধ্যে বৈঠক হয়।

দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং বঙ্গোপসাগর উপকূলীয় দেশগুলোর পারস্পরিক সহযোগিতাবিষয়ক জোট বিমসটেকের শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে আগামী ৩০-৩১ আগস্ট ‘বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টি-সেক্টরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকোনমিক কো-অপারেশন বিমসটেক’-এর চতুর্থ শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি সম্মেলনে অংশ নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আনুষ্ঠানিক আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

সূত্র বলছে, ৩০ আগস্ট কাঠমান্ডু যাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সম্মেলনে বিমসটেকের সদস্য রাষ্ট্র ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং টোবগে, মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি, শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট মাইত্রিপালা সিরিসেনা এবং থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান-ওচারেরও যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে।

বিম্সটেক দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সাতটি দেশ নিয়ে গঠিত একটি আঞ্চলিক জোট। ১৯৯৭ সালে এ জোট গঠিত হয়। সংস্থাটির প্রধান কার্যালয় ঢাকায়, আর বর্তমান সভাপতি দেশ নেপাল।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে