চলে গেলেন শান্তির দূত

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৯ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন। মানবতার পক্ষে কাজ করে শান্তিতে নোবেল পুরস্কারজয়ী এই ব্যক্তিত্ব গতকাল শনিবার সুইজারল্যান্ডে মারা যান। তার নামে প্রতিষ্ঠিত কফি আনান ফাউন্ডেশন টুইটারে এ খবর দেয়। জাতিসংঘের দুইবারের এই মহাসচিবের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন বিশ্বনেতারা।

কফি আনান স্বচ্ছ ও অধিকতর শান্তিপূর্ণ পৃথিবী গড়তে সারাজীবন লড়াই করে গেছেন। প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ আফ্রিকান হিসেবে জাতিসংঘের মহাসচিব নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি।

কফি আনান ফাউন্ডেশন শনিবার সকালে তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে। টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় ফাউন্ডেশন জানায়, শনিবার শেষ বিদায় নিয়েছেন কফি আনান। তিনি একজন অভিজ্ঞ ‘বিশ্বনায়ক’ ছিলেন।

১৯৯৭ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত দুই মেয়াদে মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করেন কফি আনান। সিরিয়া যুদ্ধের শান্তিপূর্ণ সমাধান খুঁজতে জাতিসংঘের বিশেষ দূত হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ২০০১ সালে জাতিসংঘ এবং কফি আনান যৌথভাবে নোবেল শান্তি পুরস্কার লাভ করেন।

কফি আনানের জন্ম ঘানায়। ১৯৩৮ সালের ৮ এপ্রিল কুমাসি এলাকায়। তিনি ছিলেন জাতিসংঘের নিয়মিত কর্মীদের একজন। সংস্থাটির কর্মীদের মধ্য থেকে তিনিই প্রথম মহাসচিব পদে উন্নীত হয়েছিলেন।

সুইজারল্যান্ডের বার্নের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন নোবেলজয়ী এই ব্যক্তিত্ব। এ সময় তার পাশে ছিলেন দ্বিতীয় স্ত্রী নানে এবং তিন সন্তান।

কফি আনান ফাউন্ডেশনের বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, কফি আনান ঘানার সন্তান ছিলেন। সেই হিসেবে আফ্রিকা অঞ্চলের প্রতি বিশেষ দায়িত্ববোধ অনুভব করতেন তিনি। মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কফি আনান ‘স্বচ্ছন্দ’ ছিলেন বলে মন্তব্য করেছে জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলে। সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় থাকতেন তিনি।

বিশ্বনেতাদের শোক : জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস বলেছেন, কফি আনান ছিলেন ‘মঙ্গলের আলোকবর্তিকা’। জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থার প্রধান জাইদ রাদ আল হুসেন শোক প্রকাশ করে টুইট করেছেন, ‘কফি আনানের মৃত্যুতে আমি শোকসন্তপ্ত। কফি ছিলেন মানব শিষ্টাচার ও মাধুর্যের উজ্জ্বল প্রতীক। হাজারো মানুষের বন্ধু ছিলেন তিনি, নেতা ছিলেন লাখো লোকের।’

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে বলেছেন, ‘কফি আনানের মৃত্যুর সংবাদ শুনে খুব খারাপ লাগছে। মহান নেতা এবং জাতিসংঘের সংস্কারক ছিলেন তিনি। যখন তিনি জন্মেছিলেন, সেই তখনকার পৃথিবাটা যেমন ছিল, তার চেয়ে উন্নত বিশ্ব গড়ে দিয়ে গেছেন তিনি।’ রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন বলেছেন, ‘কফি আনান বেঁচে থাকবেন রুশদের হৃদয়ে।’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ‘বিশ্ব কেবল একজন আফ্রিকান ক‚টনীতিক হারাল তা-ই নয়, আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তার এক বিবেকও হারাল পৃথিবী।’

শান্তিতে নোবেলজয়ী জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাষ্ট্রপতি এক শোকবার্তায় কফি আনানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বলেন, শান্তি, গণতন্ত্র ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় অসামান্য অবদানের জন্য বিশ্ববাসী কফি আনানের কথা মনে রাখবে। শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন। প্রধানমন্ত্রী পৃথক এক শোকবার্তায় কফি আনানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় তার অবদানের কথা স্মরণ করেন। একই সঙ্গে তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে