রায় আগেই লেখা হয়ে আছে

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০১:০৮ | প্রিন্ট সংস্করণ

জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় আগেই লেখা হয়ে আছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। গতকাল এক আলোচনাসভায় তিনি বলেন, খালেদা জিয়া একটা বানানো মামলায় আজ কারাগারে। আগামী ২৯ অক্টোবর

রায়ের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। ২৯ তারিখ কেন? তারা চাইলে কালকে দিতে পারেন। রায় তো আগেই লেখা হয়ে আছে। এটা তারেক রহমানকে যে বিচারক আদালতে খালাস দিয়েছিলেন, এটা ইউটিউবে তার বক্তব্য শুনলাম, কীভাবে রায় লিখে নিয়ে আসা হয়। আমাদের সাবেক প্রধান বিচারপতির (এসকে সিনহা) বক্তব্য শোনান ফেসবুকে, কীভাবে তার ওপর চাপ প্রয়োগ করা হয়েছে এসব জানার পরে সুবিচারের প্রত্যাশা করাও এক ধরনের বোকামি।

জাতীয় প্রেসক্লাবে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ড্যাব) উদ্যোগে সংগঠনের সাবেক সভাপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক এমএ হাদীর ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এ আলোচনাসভা হয়। সংগঠনের সহসভাপতি অধ্যাপক আবদুল কুদ্দুসের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেনের পরিচালনায় আলোচনাসভায় অধ্যাপক আবদুল মান্নান মিয়া, অধ্যাপক আশরাফ হোসেন, অধ্যাপক সিরাজউদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক মোস্তাক রহিম স্বপন, ডা. বজলুল গনি ভুঁইয়া, ডা. সাইফুল ইসলাম সেলিম, ডা. তৌহিদুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

ব্যাংকিং খাতসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে হাজার হাজার অর্থ লুণ্ঠনের পরিসংখ্যান তুলে ধরে নজরুল ইসলাম খান বলেন, একটার পর একটা ব্যাংক থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা লুট হয়েছে, তার কোনোটারই বিচার হয়নি। রাষ্ট্রীয় ব্যাংকে থেকে অর্থ লুট হয়ে গেল, কোনো বিচার নেই। এই লুণ্ঠনের বিচার দ্রুত করার আগ্রহ সরকারের নেই। বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের ৩ কোটি টাকার অভিযোগ আনা হয়েছে, সেটা দ্রুততর করা হয়েছে। খালেদা জিয়া অসুস্থ। আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য আদালতে যাওয়ার তার সমর্থ নেই। সরকারের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আদালত বলেছেন, তার অনুপস্থিতিতে বিচার হবে। সেই মামলার রায় ২৯ তারিখ দেওয়া হবে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে