ভারতে ‘মিটু’ ঝড়ে মন্ত্রিত্ব ছাড়লেন এমজে আকবর

  আমাদের সময় ডেস্ক

১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির অভিযোগের মুখে পদত্যাগ করলেন ভারতের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এমজে আকবর। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে

গতকাল বুধবার দুপুরে তিনি পদত্যাগপত্র পাঠান। এর মধ্য দিয়ে আকবরই হলেন সম্প্রতি ভারতে শুরু হওয়া হ্যাশট্যাগ মিটু ঝড়ে আসন উপড়ে যাওয়া প্রথম কোনো হাইপ্রোফাইল ব্যক্তিত্ব। খবর : এনডিটিভি।

খ্যাতিমান এ সাংবাদিক ভারতের একাধিক প্রভাবশালী দৈনিকের সম্পাদক ছিলেন। বিজেপি সরকার গঠনের পর দুই বছর আগে গুরুত্বপূর্ণ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বও পেয়েছিলেন। সম্প্রতি আকবরের বিরুদ্ধে এক নারী সাংবাদিক যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তোলেন। পরে ২০ জনের বেশি নারী অভিযোগ করেন, আকবর যখন সাংবাদিকতা পেশায় ছিলেন, তখন তার যৌন হয়রানির শিকার হয়েছিলেন তারা। তবে গত রবিবারও পদত্যাগ করবেন না বলে জানিয়েছিলেন এমজে আকবর। অভিযোগকারীদের বিরুদ্ধে আদালতেও গিয়েছিলেন তিনি। গতকাল তিনি বলেছেন, মামলা লড়ার স্বার্থেই তিনি দপ্তর ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। মোদি সরকারে আকবরই প্রথম মন্ত্রী, যিনি কোনো অভিযোগ মাথায় নিয়ে পদত্যাগ করলেন।

পদত্যাগের বিষয়ে এমজে আকবর এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আমি যখন ব্যক্তিগতভাবে আদালতে বিচার পাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি, তখনই মনে হয়েছে আমার পদত্যাগ করা উচিত এবং আমার নামে তোলা অভিযোগের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগতভাবে লড়াই করা উচিত।’

দুই সপ্তাহ ধরে #মিটু ইন্ডিয়া আন্দোলনে একের পর এক নারী কর্মক্ষেত্রে যৌন নিপীড়নের শিকার হওয়া নিয়ে মুখ খুলেছেন। সবচেয়ে বেশি অভিযোগের তীর ভারতের শক্তিশালী দুই জগৎ বিনোদন ও গণমাধ্যমের দিকে।

প্রতিমন্ত্রী আকবরের বিরুদ্ধে প্রথমে মুখ খোলেন জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক প্রিয়া রামানি। এক বছর আগে ‘ভোগ ইন্ডিয়া’তে নিজের লেখা ‘টু দ্য হার্ভি ওয়েইনস্টেইন অব দ্য ওয়ার্ল্ড’ আর্টিকেলটি গত ৮ অক্টোবর রিটুইট করেন প্রিয়া। ওই লেখায় তিনি কর্মক্ষেত্রে প্রথমবারের মতো যৌন অসদাচরণের শিকার হওয়ার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন। আর্টিকেলে কারো নাম না বললেও লেখাটি রিটুইট করার সময় তিনি আকবরের নাম উল্লেখ করেন।

গত সোমবার প্রিয়া রামানির বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন আকবর। এতে ‘ইচ্ছা করে বিদ্বেষপূর্ণ, মনগড়া এবং অশ্লীল’ অভিযোগ এনে তার সুনাম ক্ষুণœ করার অভিযোগ করেন তিনি। প্রিয়া রামানির পর আরও অনেক নারী যৌন হয়রানির অভিযোগ করার পর আকবর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পদত্যাগ করতে যাচ্ছেন বলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে খবর রটে।

অনেক সাংবাদিকও ৬৭ বছর বয়সী এ প্রতিমন্ত্রীকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানিয়েছিলেন। অন্যথায় তিনি উপস্থিত আছেন এমন অনুষ্ঠানের খবর প্রচার না করার হুমকি দেন তারা।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে