পাঁচদিন আগে ডিবি পরিচয়ে তুলে নেওয়ার অভিযোগ

  আবু সাউদ মাসুদ, নারায়ণগঞ্জ

২৩ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ০০:৩৫ | প্রিন্ট সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত চার যুবকের পরিচয় মিলেছে। তারা হলেন লুৎফর মোল্লা, সবুজ সরদার, ফারুক প্রামাণিক ও জহিরুল। তাদের মধ্যে সবুজ সরদার, ফারুক প্রামাণিক ও জহিরুল পাবনার আতাইকুলা থানার পুষ্পপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। হত্যার পাঁচদিন আগে গত ১৫ অক্টোবর তাদের নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের গাউছিয়া থেকে ডিবি পরিচয়ে তুলে নেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ করেছেন স্বজনরা। গতকাল সোমবার নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে লাশ শনাক্ত করার সময় তারা এ অভিযোগ করেন।

এদিকে লাশ উদ্ধারের ঘটনায় অজ্ঞাত চার ব্যক্তিকে আসামি করে হত্যা ও অস্ত্র আইনে দুটি মামলা করেছে পুলিশ। আড়াইহাজার থানার এসআই রফিউদ্দৌলা গত রবিবার রাতে মামলাগুলো করেন। আসামিদের ‘অজ্ঞাত’ উল্লেখ করা হলেও তাদের বয়স ও পরনের পোশাকের বর্ণনা দেওয়া হয়েছে এজাহারে।

গত রবিবার সকাল ৬টায় আড়াইহাজারের ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সাতগ্রাম ইউনিয়নের পাঁচরুখী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে ৪ যুবকের গুলিবিদ্ধ ও মাথা থেঁতলানো লাশ উদ্বার করে পুলিশ। লাশের পাশ থেকে দুটি পিস্তল ও একটি সাদা রঙের নোয়া মাইক্রোবাস জব্দ করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. আসাদুজ্জামান বলেন, চারটি লাশের তিনটির মাথায় গুলির চিহ্ন রয়েছে। চারজনেরই মাথার পেছন থেকে আঘাত করা হয়েছে। ভারী কোনো বস্তু দিয়ে তাদের মাথা ও মুখম-ল থেঁতলে দেওয়া হয়েছে। শনিবার রাতের কোনো একসময় চারজনের মৃত্যু হয় বলে তিনি মনে করছেন।

গতকাল সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে এসে স্বজনরা তিন যুবকের লাশ শনাক্ত করেন। সকালে সবুজ সরদারের লাশ শনাক্ত করেন তার বাবা খাইরুল সরদার। বিকালে ফারুক প্রামাণিকের লাশ তার বাবা জামাল প্রামাণিক ও জহিরুলের লাশ তার শ্বশুর নজরুল ইসলাম শনাক্ত করেন। রবিবার লুৎফর মোল্লার লাশ শনাক্ত করেন তার স্ত্রী রেশমা আক্তার।

নিহত ফারুকের বাবা জামাল প্রামাণিক বলেন, তার ছেলে ফারুক ১৫ বছর ধরে রূপগঞ্জের গাউছিয়ায় বাস চালাত। গত ১৫ অক্টোবর ডিবি পরিচয়ে গাউছিয়া থেকে সবুজ সরদার, ফারুক প্রামাণিক ও জহিরুল এ তিনজনকে ধরে নেওয়া হয়।

অটোরিকশাচালক খাইরুল সরদারের দাবি, তার ছেলে সবুজের বয়স ২০-২২। তিনি পাবনায় একটি বেকারিতে কাজ করতেন। সবুজের সাত মাস বয়সী একটি ছেলেসন্তান রয়েছে। মাসখানেক আগে বেকারিতে কাজ করার উদ্দেশে ঢাকায় আসেন সবুজ। ১৫ অক্টোবর ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তাকে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় বলে তিনি জানতে পেরেছেন। সবুজের সহকর্মীরা তাকে এ তথ্য দেন বলে জানান তিনি। পরে গণমাধ্যমে সংবাদ দেখে তিনি ছেলের লাশ শনাক্ত করতে আসেন।

জহিরুলের শ্বশুর নজরুল বলেন, জহিরুল বেকারিতে কাজ করতেন। বেকারিতে কাজ করার জন্য তাকে গ্রাম থেকে নিয়ে এসেছিলেন ফারুক। ফারুক ছিনতাইতারী চক্রের সঙ্গে জড়িত বলে শুনেছেন তিনি। ফারুকই গ্রাম থেকে বাকি দুজনকে শহরে নিয়ে আসেন কাজ করানোর জন্য।

রেশমা আক্তার জানান, তার স্বামী বাসচালক। শুক্রবার বিকাল ৫টার দিকে বাসা থেকে বের হন তিনি। সন্ধ্যা ৭টার দিকে গাড়ি নিয়ে রাস্তায় নামেন। রাত ১টায় স্বামীর সঙ্গে রেশমার শেষ কথা হয়। এর পর থেকে স্বামীর মোবাইল ফোন বন্ধ পান। রবিবার সকালে টেলিভিশনে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে চারজনের লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে ছুটে যান তিনি।

রেশমা আরও জানান, তারা রাজধানীর রামপুরা থানার বাগিচারটেক এলাকায় ভাড়াবাড়িতে থাকতেন। তার গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার উত্তর আকনবাড়িয়া কালীবাড়ি এলাকায়। তার বাবার নাম মুনসুর মোল্লা।

আড়াইহাজার ওসি মুহাম্মদ আবদুল হক জানান, নিহতদের মধ্যে রবিবার রাতেই লুৎফর মোল্লা নামে একজনের পরিচয় শনাক্ত হওয়ায় তার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরিচয় শনাক্তের পর নারায়ণগঞ্জ মর্গ থেকে গতকাল বাকি তিনজনের লাশ পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ইতোমধ্যে লাশের ময়নাতদন্তও হয়েছে।

মামলার এজাহারে অজ্ঞাত চার আসামির বিবরণ দিয়ে বলা হয়েছে, এক নম্বর আসামির বয়স ৩৫, তার পরনে ছিল খয়েরি রঙের গেঞ্জি ও নীল রঙের ফুলপ্যান্ট। দুই নম্বর আসামির বয়স ৩৮, পরনে ছিল বেগুনি রঙের গেঞ্জি ও সাদা-সবুজ রঙের চেক লুঙ্গি। তিন নম্বর আসামির বয়স ৩৭, পরনে ছিল হাফহাতা গেঞ্জি ও নীল রঙের জিন্স প্যান্ট। চার নম্বর আসামির বয়স ৩৫, পরনে ছিল কমলা ও সাদা রঙের হাফহাতা গেঞ্জি ও নীল রঙের প্যান্ট।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, রবিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাঁচরুখী ফকির বাড়ির সামনে দুদল অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীর মধ্যে গোলাগুলির খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে চার ব্যক্তির লাশ পড়ে থাকতে দেখে।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, মরদেহ ও অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় মামলা হয়েছে। পুলিশ গুরুত্বসহকারে বিষয়টির তদন্ত করছে। রহস্য উদ্ঘাটনের কাজ চলছে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে