sara

আ.লীগের মনোনয়ন ২০০৮ আদলে

মনোনয়নবঞ্চিত এমপিদের আসনে আসছেন তরুণরা

  আলী আসিফ শাওন

১৪ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ১০:৫৯ | প্রিন্ট সংস্করণ

সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে প্রভাবশালী মন্ত্রী-এমপি ও প্রবীণ নেতাদের পাশাপাশি একঝাঁক তরুণ প্রার্থীও রয়েছেন। তিনশ আসনের বিপরীতে ক্ষমতাসীন এ দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীর সর্বমোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ২৩ জনে।

গত আড়াই বছর ধরে ছয় মাস অন্তর বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার মাধ্যমে প্রতিটি আসনে একাধিক নির্বাচনী জরিপ করিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে সব জরিপের ফল এখন তার ল্যাপটপে। সকল জরিপের ফল মিলিয়ে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করবেন তিনি, মুখ দেখে কিংবা পোর্টফোলিও দেখে নয়।

প্রার্থী চূড়ান্তকরণে সংশ্লিষ্ট আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী দলের প্রার্থীর বিষয়টিও বিবেচনায় রাখা হবে। বাদ দেওয়া হবে বিতর্কিত নেতাদের; তারা টানা দুই মেয়াদেই নৌকা প্রতীকে বিজয়ী হয়ে থাকলেও। এ ছাড়া নতুনদের নেতৃত্বে নিয়ে আসতে চান দলটির প্রধান। তাই অনেক প্রবীণ সাংসদ, নেতা এমনকি মন্ত্রীর মধ্যেও দুশ্চিন্তার ছাপ পড়েছে মনোনয়ন পাচ্ছেন তো?

আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের একাধিক সদস্যের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আদলেই একাদশ সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দিতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। আজ বুধবার সকালে ধানম-িতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেবেন দলের সভাপতি শেখ হাসিনা। মূলত মনোনয়নপ্রত্যাশী সকলের উদ্দেশে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখবেন তিনি। এ পর্ব শেষে দলের সংসদীয় বোর্ডের ধারাবাহিক বৈঠক ডেকে ৩০০ আসনে দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করবেন আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডেরও সভাপতি শেখ হাসিনা। দলটির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, সংসদীয় বোর্ডের সদস্যরা আলোচনার ভিত্তিতে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করে থাকেন।

নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পরদিন থেকেই আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি ও জমা নেওয়া শুরু করে। এরই ফাঁকে দুই দফা দলের সংসদীয় বোর্ডের বৈঠক করেছেন সভাপতি শেখ হাসিনা। সর্বশেষ গত সোমবার রাতে গণভবনে এক অনানুষ্ঠানিক বৈঠকে তিনি বলেন, এবারের নির্বাচন কঠিন হবে। বিএনপিসহ সকল দল অংশ নিচ্ছে। কাউকে মুখ দেখে মনোনয়ন দেওয়া হবে না। যত বড় নেতাই হোক, জরিপে যাদের অবস্থান ভালো না, তারা মনোনয়ন পাবেন না।

আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহম্মদ ফারুক খান গতকাল আমাদের সময়ের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, প্রধানমন্ত্রী দুবছর ধরে বলে আসছেন, জরিপের ফল দেখে মনোনয়ন দেবেন। এখনো তিনি তার অবস্থানে অনড় আছেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রায় প্রতিটি সংসদ নির্বাচনেই আওয়ামী লীগের এক-তৃতীয়াংশ প্রার্থীর বদল হয়। এবারও এটা হতে পারে। বর্তমান সংসদের যে সব এমপি মনোনয়ন পাবেন না, তাদের আসনে তরুণরা মনোনয়ন পাবেন।

একই বিষয়ে আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের আরেক সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক গতকাল আমাদের সময়কে বলেন, নেত্রী জানিয়ে দিয়েছেন, যে সব এমপি মনোনয়নবঞ্চিত হবেন, তাদের আসনে ইয়াংদের মনোনয়ন দেওয়া হবে।

আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের অন্য এক সদস্য বলেন, ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের নির্বাচনের আদলে এবারের নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দেবে আওয়ামী লীগ। মুখ দেখে কিংবা পোর্টফোলিও দেখে নয়, জরিপের ফল দেখে উইনেবল প্রার্থীকেই মনোনয়ন দেবে আওয়ামী লীগ। তিনি বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে ৮০টির বেশি আসনে মনোনয়ন দেওয়া নবীনদের প্রায় সকলেই বিজয়ী হয়েছিলেন। এবারের নির্বাচনের মধ্য দিয়েও একটি তারুণ্যনির্ভর সংসদ দেখতে চান আমাদের নেত্রী। তরুণদের পাশাপাশি যোগ্য নারীনেত্রীরাও মনোনয়ন পাওয়ার ক্ষেত্রে এগিয়ে থাকবেন। তিনি আরও বলেন, গত দুই মেয়াদে এমপি হওয়া অনেকেই নানা কারণে বিতর্কিত হয়ে পড়েছেন। একাধিক জরিপে দেখা গেছে, মানুষ আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নের প্রতি আস্থাশীল, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের ধারাবাহিকতাও চান; কিন্তু অনেক এলাকাতেই সরকারি দলের সংসদ সদস্য ও তাদের আত্মীয়স্বজনদের ওপর সাধারণ মানুষ বিরক্ত। তারা প্রার্থীর বদল চান।

গতকাল মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের দুই সদস্যের আবাসস্থল ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকেই মনোনয়নপ্রত্যাশীদের ব্যাপক জটলা, তাদের মধ্যে মন্ত্রী পর্যন্ত রয়েছেন। কেউ ফুল নিয়ে, কেউবা মিষ্টি নিয়ে দোয়া চাইতে এসেছেন বোর্ড সদস্যদের কাছে। মনোনয়প্রত্যাশীরা পায়ে হাত দিয়ে সালাম করে আশীর্বাদ নিয়ে যাচ্ছেন আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন পাওয়ার আশায়। ঢাকা ক্যান্টনমেন্টের শিখা অনির্বাণের উল্টো পাশে সংসদীয় বোর্ডের সদস্য ফারুক খানের বাড়ি ‘সুখনীড়’-এ দুই ঘণ্টায় প্রায় তিনশর বেশি মনোনয়নপ্রত্যাশীর সঙ্গে দেখা হয় এ প্রতিবেদকের। এদের মধ্যে ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা মাসুদ দুলাল, মনিরুজ্জামান মনির, মাহমুদ হাসান রিপন, শেখ সোহেল রানা টিপু, সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য মাহজাবিন খালেদ প্রত্যেকেই বলেন, জরিপের ভিত্তিতে মনোনয়ন দিলে তারা প্রত্যেকেই মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী। শুধু ফারুক খানের বাসায়ই নয়, সংসদীয় বোর্ডের সকল সদস্যের বাসা ও অফিসে এভাবেই যাওয়া-আসা করছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীরা। মনোনয়ন নিয়ে দৌড়ঝাঁপের এ তালিকায় বর্তমান মন্ত্রিসভার সদস্য, সংসদ সদস্য এমনকি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারাও রয়েছেন। অনেকের মধ্যেই দুশ্চিন্তার ছাপ মনোনয়ন পাচ্ছেন তো !

আজ মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল সন্ধ্যায় জানানো হয়, বুধবার (আজ) সকাল ১১টায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানম-িস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে যারা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র কিনেছেন তাদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সংসদীয় বোর্ডের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সভায় সকলকে যথাসময়ে উপস্থিত থাকতে বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আওয়ামী লীগের ৪ হাজার ২৩ জন মনোনয়নপ্রত্যাশীর একসঙ্গে ধানম-ি অফিসে স্থান সংকুলান হবে না ভেবে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সাক্ষাৎকার নেওয়ার চিন্তা করেছিলেন সিনিয়র নেতারা। কিন্তু নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পর সরকারি জায়গা গণভবনে আনুষ্ঠানিক রাজনৈতিক কার্যকলাপে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন হতে পারে ভেবে ধানম-ি অফিসে সাক্ষাৎকার নেওয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়।

আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল নেতারা জানান, মনোনয়ন ফরম বিক্রির শেষ দিন গত সোমবার থেকেই সব ফরম নির্দিষ্ট বিভাগ ও আসন অনুযায়ী সাজানো হয়েছে। সাক্ষাৎকার পর্ব শেষে দলের সংসদীয় বোর্ডের সদস্যদের নিয়ে বিভাগওয়ারি আসন চূড়ান্ত করবেন শেখ হাসিনা। এভাবে ৩০০ আসনে প্রথমে দলীয় প্রার্থী ঠিক করবেন তিনি। তারপর আওয়ামী লীগের নির্বাচনী জোট মহাজোটের শরিক দল ও ১৪-দলীয় জোটের সঙ্গে আলোচনা করে জোটের প্রার্থী চূড়ান্ত করা হবে। জাতীয় পার্টিসহ সকল শরিক ও সমমনা দলের জন্য ৮০ থেকে ১০০টি আসন ছাড়ের পরিকল্পনা রয়েছে আওয়ামী লীগের।

 

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে