সিইসিকে অসহায় লাগছে বিএনপির

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হামলা, গ্রেপ্তার ও হয়রানির বিষয়ে অভিযোগ নিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) এবং পুলিশের মহাপরিদর্শকের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছে বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল। তবে সুনির্দিষ্ট আশ্বাস না মেলায় সিইসিকে অসহায় মনে হয়েছে বিএনপির। অবশ্য পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) তাদের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমানের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলটি গতকাল বুধবার প্রথমে সিইসি ও পরে

আইজিপির সঙ্গে তাদের কার্যালয়ে গিয়ে সাক্ষাৎ করে। প্রতিনিধি দলে ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এজেড এম জাহিদ হোসেন ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বিজন কান্তি রায়।

দুপুরে সিইসির সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে নির্বাচন ভবনে সেলিমা রহমান বলেন, পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার ও হয়রানি করছে। এসব বিষয় সিইসিকে জানালে তিনিও সুনির্দিষ্ট আশ্বাস দিতে পারেননি। তাই আমরা মনে করি, তিনি (সিইসি) অসহায়। তিনি বিব্রতবোধ করছেন। কারণ তিনি কিছু করতে পারছেন না। এ অবস্থায় বিএনপির নির্বাচনী এজেন্ট দেওয়া নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন সেলিমা রহমান।

তিনি আরও বলেন, তফসিল ঘোষণার পর নির্বাচন কমিশন থেকে বলা হয়েছিলÑ আর কোনো নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হবে না। তার পরও আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা ও গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। অজ্ঞাতনামা মামলার আসামি দেখানো হচ্ছে। এ বিষয়ে আমরা সিইসিকে জানালে তিনি জানান, পুলিশের সঙ্গে এ বিষয়ে তারা কথা বলেছেন। এ ছাড়া যারা সহিংসতা করেছে, তাদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছি। তবে সিইসির কাছ থেকে সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপের আশ্বাস মেলেনি।

এ পরিস্থিতিতে নিজেদের নির্বাচনী এজেন্ট পাওয়া নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে সেলিমা রহমান বলেন, সন্ত্রাসী ও আওয়ামী লীগ পুলিশের সহায়তায় এ কাজগুলো (হামলা-ভাঙচুর) করছে। পুলিশ তো আমাদের সহায়তা করছেই না, বরং বিভিন্ন জায়গায় আমাদের নেতাকর্মীদের ব্লক রেড দিচ্ছে। হয়রানি ও গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। যারা জামিনে আছেন, তাদেরও গ্রেপ্তার করা হচ্ছে।

সেলিমা রহমানের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলটি বিকালে আইজিপি মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে। নির্বাচনী প্রচারে বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর হামলা, বিরোধী দলের নেতাদের গ্রেপ্তার বন্ধে আইজিপির কাছে আহ্বান জানান তারা।

জাবেদ পাটোয়ারীর কার্যালয় থেকে বের হয়ে সেলিমা রহমান সাংবাদিকদের বলেন, আমরা আইজিকে বলেছিÑ নির্বাচনের আগে বাকি ১৮ দিন যাতে আমাদের নেতাকর্মীরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রচার চালাতে পারেন। তিনি আমাদের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

সেলিমা রহমান বলেন, বিভিন্ন এলাকায় বিএনপির নেতাকর্মীরা বাধার শিকার হচ্ছেন। বিএনপি নেতাদের গাড়ি ভাঙচুর হচ্ছে, গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। আমরা চাই সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে