সু চির দূত ঢাকায়

রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ জানুয়ারি ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৭, ০০:৫২ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গা মুসলিমদের ফেরত নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঢাকা সফররত মিয়ানমারের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও অং সান সু চির বিশেষ দূত কিয়াও তিন গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ আহ্বান জানান। 
এর আগে বিকালে কিয়াও তিন রাখাইন রাজ্যে চলমান রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে বৈঠক করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হকের সঙ্গে। রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এ বিষয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেনÑ মিয়ানমার থেকে যেসব রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে, তাদের ফেরত নিতে হবে।
এ ছাড়া দীর্ঘদিন ধরে পাঁচ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে বসবাস করছে। মিয়ানমারের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে সে দেশের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদারে প্রয়োজনীয় সব কিছু করার আশ্বাস দেন প্রধানমন্ত্রী। 
রোহিঙ্গা সমস্যাসহ দ্বিপীয় বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশের আগ্রহের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের সমস্যা আমরা দুই দেশ মিলেই স্থায়ীভাবে সমাধান করতে পারি। 
এ ছাড়া সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ সরকারের ‘জিরো টলারেন্স’ নীতির কথা তুলে ধরেন শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের মাটি ব্যবহার করে প্রতিবেশী যে কোনো দেশে বিচ্ছিন্নতাবাদী কর্মকা- চালাতে না দেওয়ার বিষয়েও সরকারের কঠোর অবস্থানের কথা মিয়ানমারের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে অবহিত করেন প্রধানমন্ত্রী। বৈঠকে অং সান সু চির একটি চিঠি প্রধানমন্ত্রীকে হস্তান্তর করেন কিয়াও তিন। এ সময় অং সান সু চিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান শেখ হাসিনা। 
সু চির দূত কিয়াও তিন বলেন, মিয়ানমার দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা আরও ঘনিষ্ঠ করতে চায়। দুই দেশের সীমান্তরীদের মধ্যে তথ্যের আদান-প্রদানের গুরুত্বও তুলে ধরেন তিনি।
প্রসঙ্গত, গত ৯ অক্টোবর মিয়ানমারের একটি পুলিশ চৌকিতে দুর্বৃত্তদের আক্রমণে কয়েক পুলিশ সদস্য নিহত হন। এর পর ওই দেশের সেনাবাহিনী স্থানীয় রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর ব্যাপক নির্যাতন শুরু করে। প্রাণভয়ে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে পালাতে শুরু করেন। প্রতিদিন শত শত রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশের জন্য সীমান্তে জড়ো হন। অক্টোবরের পর থেকে এ পর্যন্ত ৬৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন। বাংলাদেশের তরফ থেকে প্রতিদিন বিষয়টি নিয়ে আলোচনার আহ্বান জানানো হচ্ছিল। ওই ঘটনার তিন মাস পর আলোচনার জন্য ঢাকায় তাদের প্রতিনিধি পাঠায় মিয়ানমার। 
উল্লেখ্য, মিয়ানমারে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা সমস্যার কারণে গত তিন দশকে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছেন।
    

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে