মানহানি মামলা খালেদাকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন ফেরত

  আদালত প্রতিবেদক

১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

যুদ্ধাপরাধীদের মদদ দেওয়ার অভিযোগে মানহানির একটি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন বাদীকে ফেরত দিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার মামলাটির বাদী বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এবি সিদ্দিকী ওই আবেদন করেন। ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবীব ওই আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে বেলা ৩টায় এ বিষয়ে আদেশ দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু কোনো কারণ ছাড়াই আবেদনটি বেলা ৩টায় আদালত বাদীকে ফিরিয়ে দেন। কেন ফিরিয়ে দেওয়া হলো এ সম্পর্কে বাদীর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

তবে আদালত আগামী ১৪ মার্চ গুলশান থানা পুলিশকে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা গেল কিনা এ সম্পর্কে প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য করেছেন।

২০১৬ সালের ৩ নভেম্বর আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়। ওইদিন আদালত তেজগাঁও থানার ওসিকে তদন্তের নির্দেশ দেন। তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি তেজগাঁও থানার ওসি (তদন্ত) এবিএম মশিউর রহমান মানহানির অভিযোগে অভিযুক্ত করে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল করেন। এর পর আদালত ওই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে ওই বছর ২২ মার্চ খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির হতে সমন জারি করেন। সমন জারি হওয়ার পর খালেদা জিয়া আদালতে হাজির না হওয়ায় ওই বছর ১২ অক্টোবর সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে গুলশান থানাকে তাকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেন। কিন্তু গুলশান থানা পুলিশ ওই আদেশ আজ পর্যন্ত বাস্তবায়ন না করায় বুধবার ধার্য তারিখে জিয়া অরফানেজ মামলায় কারাগারে থাকা খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন করেন।

পুলিশের দাখিল করা প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি জয়লাভ করলে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মন্ত্রিপরিষদ গঠন করেন। স্বাধীনতাবিরোধী আলবদর রাজাকারদের হাতে মন্ত্রিত্ব তুলে দেন। যার মাধ্যমে স্বীকৃত স্বাধীনতাবিরোধীদের গাড়িতে জাতীয় পতকা তুলে দিয়ে দেশের মানচিত্র এবং জাতীয় পতাকার মানহানি ঘটিয়েছেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে