সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আ.লীগের গণসংবর্ধনা আজ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২১ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ২১ জুলাই ২০১৮, ১২:০৭ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানের সব ধরনের প্রস্তুতি ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে। আজ শনিবার রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দলের নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সংগীত, অভিনয় ও চিত্রশিল্পীদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দেওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছে আওয়ামী লীগ। দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে- শিল্পী, রাজনীতিক, বুদ্ধিজীবী তথা সব শ্রেণিপেশার মানুষের অংশগ্রহণে এটি হবে ‘শিল্পিত সংবর্ধনা’।

প্রস্তুতির বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী আমাদের সময়কে বলেন, দলীয় সব প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন। পুরো নগরবাসীর সঙ্গে আমরাও অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে অনেক দিয়েছেন। বিনিময়ে তিনি কিছুই প্রত্যাশা করেন না। নগরবাসী এদিন কৃতজ্ঞতাস্বরূপ প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দেবে। আমরা চাই এদিন যেন সুশৃঙ্খলভাবে, যান চলাচল ব্যাহত না করে, পুরো রাজধানীই প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনাস্থলে পরিণত হয়। আমাদের প্রত্যাশা শিল্পী, রাজনীতিক, বুদ্ধিজীবী তথা সব শ্রেণিপেশার মানুষের অংশগ্রহণে এটি হবে ‘শিল্পিত সংবর্ধনা’।

খালিদ মাহমুদ জানান, প্রধানমন্ত্রীকে শিল্পিত সংবর্ধনার অংশ হিসেবে সংবর্ধনাস্থলে শেখ হাসিনার শৈশব থেকে আজ পর্যন্ত জীবনের নানা পর্যায়ে চিত্র এঁকে প্রদর্শন করা হবে। প্রদর্শনীতে প্রধানমন্ত্রীর অর্জন ও সফলতার গল্পও থাকবে। বিকাল ৩টায় প্রধানমন্ত্রী সংবর্ধনা মঞ্চে পৌঁছানোর আগে দেশের উন্নয়ন এবং সফলতার গল্প নিয়ে সংগীত ও অভিনয়শিল্পীরা কোরিওগ্রাফি করবেন।

প্রদর্শনীস্থলে থাকবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও শেখ হাসিনার লেখা বই। এ ছাড়া তাদের নিয়ে লেখা কিংবা সম্পাদিত বইও থাকছে। এর বাইরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানসহ আশপাশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবিসহ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন এবং অর্জনের তথ্যসংবলিত পোস্টার, ফেস্টুন ও ব্যানার থাকছে। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীকে উত্তরীয় পরিয়ে ফুলেল সংবর্ধনা দেওয়া হবে।

গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ঢাকা এবং ঢাকার পার্শ্ববর্তী এলাকার নেতাকর্মীদের জমায়েতের পরিধি কেমন হবে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, আজকে রাজনীতিতে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা ক্ষমতায় এসে উন্নয়ন করতে পেরেছি ও অর্জন করতে পেরেছি, যা দেশে-বিদেশে সমাদৃত ও প্রশংসিত হচ্ছে। সে কারণে কৃতজ্ঞ জাতির পক্ষ থেকে আমরা স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতৃত্বদানকারী জাতির জনকের কন্যাকে এ সংবর্ধনা দিচ্ছি। আর লোক সমাগমের বিষয়টি ক্যামেরাই বলে দেবে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে