স্বপনের ৭ টুকরা লাশের খোঁজে শীতলক্ষ্যায় তল্লাশি

  নিজস্ব প্রতিবেদক, নারায়ণগঞ্জ

২১ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আলোচিত কাপড় ব্যবসায়ী স্বপন কুমার সাহার লাশের সন্ধানে শীতলক্ষ্যা নদীতে তল্লাশি চালানো হয়েছে। হত্যাকা-ের ঘটনায় রিমান্ডে থাকা আসামি পিন্টু দেনবাথের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সেন্ট্রাল খেয়াঘাট এলাকায় ওই অভিযান চালানো হয়। তবে এতে লাশের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি।

এর আগে ১৯ জুলাই স্বপন হত্যা মামলার আসামি রতœা রাণী কর্মকার ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে স্বপন হত্যার আদ্যোপান্ত তুলে ধরেন। এর আগের দিন রাতে শহরের মাসদাইর এলাকায় রতœা যে ফ্ল্যাটে বসবাস করেন ওই ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে স্বপন হত্যায় ব্যবহৃত ধারালো বঁটি, শিলনোড়া, চাদর, তোশক উদ্ধার করা হয়। রতœা পুলিশকে জানিয়েছেÑ তার ফ্ল্যাটেই ২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর রাতে স্বপনকে হত্যা করা হয়। ওই কিলিং মিশনে ছিলেন রতœা ও পিন্টু দেবনাথ। ফ্ল্যাটে অভিযানের সময় রতœা ও পিন্টু দুজনই উপস্থিত ছিলেন। তারা কীভাবে স্বপনকে হত্যা করেছেন, তার সবকিছু ডিবিকে জানান। সেদিন দুপুরে পিন্টু দেবনাথকে রিমান্ডে নেওয়া হয়।

এদিকে আদালতে রতœা জানিয়েছেন, ২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ শহরের মাসদাইর বাজার কাজীবাড়ির প্রবাসী আজহারুল ইসলামের ৪ তলা ভবনের দ্বিতীয় তলার ফ্ল্যাটে হত্যার আগে পিন্টু তার প্রেমিকা রতœা রাণীকে দিয়ে স্বপনকে ডেকে নেন। এরপর বিছানায় বসিয়ে যৌন উত্তেজনা সৃষ্টি করে আগে থেকে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে রাখা ফ্রুটিকা জুস স্বপনকে পান করান রত্মা রাণী। এতে অচেতন হয়ে পড়েন স্বপন। এরপর শীলনোড়া দিয়ে স্বপনের মাথায় আঘাত করেন পিন্টু। পরে বাথরুমে নিয়ে বঁটি দিয়ে লাশ গুমের জন্য সাত টুকরা করে বাজারের ব্যাগে ভরে শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে দেন পিন্টু দেবনাথ।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে