বঙ্গোপসাগরে পর্যটকবাহী জাহাজ ডুবোচরে আটকা

৫ শতাধিক পর্যটক উদ্ধার

  আব্দুল্লাহ মনির, টেকনাফ

১২ জানুয়ারি ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বঙ্গোপসাগরে পর্যটকবাহী জাহাজ এলসিটি কাজল পাঁচ শতাধিক পর্যটক নিয়ে ডুবোচরে আটকা পড়ে। পরে এ সব পর্যটকদের সার্ভিস ট্রলারে করে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

গতকাল বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ৫শ পর্যটক নিয়ে এলসিটি কাজল সেন্টমার্টিনে যাওয়ার পথে জাহাজটি সাগরের নাংদিয়া নামক এলাকায় ডুবোচরে আটকা পড়ে যায়। পরে সেন্টমার্টিন থেকে ৮টি সার্ভিস ট্রলার পাঠিয়ে জাহাজে থাকা পর্যটকদের নিরাপদে সেন্টমার্টিন নিয়ে আসা হয়। প্রতি ট্রলারে ৫০ থেকে ৬০ জন যাত্রী ধারণ করা হয়। বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত জাহাজটি ডুবোচরে আটকে ছিল।

সেন্টমার্টিন ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুর রব জানান, বুধবার সকালে টেকনাফ দমদমিয়া জেটি ঘাট থেকে পর্যটক নিয়ে সেন্টমার্টিন আসার পথে বঙ্গোপসাগরের নাংদিয়া এলাকায় ডুবোচরে জাহাজটি আটকা পড়ে। সাগরে জাহাজ আটকা পড়ার খবর পেয়ে সেন্টমার্টিন ট্রলার মালিক সমিতির ৮টি সার্ভিস ট্রলার পাঠিয়ে পর্যটকদের নিরাপদে সেন্টমার্টিন নিয়ে আসা হয়েছে। তবে স্থানীয় ভাষায় হার ভাটার কারণে জাহাজটি ডুবোচরে আটকা পড়েছে বলে জানান তিনি। সাগরে জোয়ার শুরু হলে জাহাজটি ডুবোচর থেকে রা পায়। তবে সেন্টমার্টিনে আগত পর্যটকদের বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে বলে জানান।

পর্যটকবাহী জাহাজ এলসিটি কাজলের ব্যবস্থাপক ইকবাল হোসেন খোকা জানান, টেকনাফ জেটি ঘাট থেকে ৪২৪ জন পর্যটক নিয়ে জাহাজটি সেন্টমার্টিন যাওয়ার পথে বঙ্গোপসাগরের নাংদিয়া এলাকায় ডুবোচরে আটকা পড়ে। এ সময় জাহাজের থাকা পর্যটকদের সার্ভিস ট্রলারে করে নিরাপদে সেন্টমার্টিন পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শফিউল আলম জানান, পর্যটকবাহী জাহাজ কাজল সাগরে ডুবোচরে আটকা পড়ার খবর পাওয়া গেছে। জাহাজে থাকা পর্যটকদের নিরাপত্তা এবং তাদের উদ্ধারে জাহাজ কর্তৃপরে সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। জাহাজে থাকা পর্যটকদের ট্রলার যোগে সেন্টমার্টিন নিয়ে যাওয়া হয় বলে জানান।

 

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে