x

সদ্যপ্রাপ্ত

  •  বিপিএল এর পঞ্চম আসরের শিরোপা জিতল রংপুর রাইডার্স। মাশরাফির হাতে চতুর্থ ট্রফি

দুদকের পাঁচ দফা সুপারিশ

বাস্তবায়ন কাজের প্রক্রিয়া শুরু করল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

  দুলাল হোসেন

১৯ নভেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পাঁচদফা সুপারিশ বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। এ জন্য গত ৮ অক্টোবর মন্ত্রণালয় থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। চিঠির পর সুপারিশ বাস্তবায়নে প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে।

২০১৬ সালে দুদকের কার্যক্রম ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা তুলে ধরার পাশাপাশি স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা, আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থাপনা, শিক্ষা খাত, সরকারি আর্থিক খাত, জনপ্রশাসনে দক্ষতার উন্নয়ন ও গণপূর্ত, যোগাযোগ, সরকারি নির্মাণ ও মেরামত সংস্থাসহ নয় ক্যাটাগরিতে সুপারিশ পেশ করে দুদক।

জানা গেছে, দুর্নীতি দমন কমিশন ২০০৪-এর ২৯ (১) ধারা অনুযায়ী প্রতিবছর পূর্ববর্তী বছরের সম্পাদিত কাজ সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন রাষ্ট্রপতির কাছে পেশ করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ওই ধারা অনুযায়ী দুর্নীতি দমন কমিশনের বার্ষিক প্রতিবেদন ২০১৬ চলতি বছর ২৪ মে রাষ্ট্রপতির কাছে হস্তান্তর করা হয়। দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল বঙ্গভবনে প্রতিবেদন পেশ করে।

স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনাসংক্রান্ত সুপারিশমালায় বলা হয়Ñ ১. প্রাইভেট প্র্যাকটিস ও ডাক্তারের ফি নির্ধারণে সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রণয়ন করা; ২. দেশের প্রতিটি নাগরিকের জন্য স্বাস্থ্যবীমা পলিসির ব্যবস্থা। সরকার এ পলিসির প্রিমিয়াম প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারে। প্রিমিয়ামের টাকায় ডাক্তার, নার্স এবং স্বাস্থ্য বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীর বেতনভাতা বাবদ প্রয়োজনীয় অর্থ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনুকূলে বাজেটে বরাদ্দ দেওয়া যেতে পারে। সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা প্রার্থী নাগরিকের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও চিকিৎসকের ইতিবাচক মনোভাব তৈরিতে এ পদ্ধতি সহায়ক হতে পারে; ৩. মেডিক্যাল কলেজ, জেলা হাসপাতাল, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত ডাক্তারদের কাছে অপসন দিয়ে আত্তীকরণের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে স্থায়ীভাবে আত্তীকরণ করে বিদ্যমান বদলি প্রথা সীমিত আকারে রহিতকরণ করা সম্ভব কিনা যাচাই করা; ৪. নাগরিকের মানসম্পন্ন চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে উপজেলা ও জেলা হাসপাতালগুলোয় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক নিয়োগের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করা; ৫. তরুণ চিকিৎসকদের ক্যারিয়ার তৈরিতে প্রয়োজনীয় প্রেষণা প্রদান করা, বিশেষ করে বিদেশে যাতে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করতে পারে, সেজন্য দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করা প্রয়োজন। দক্ষিণ-দক্ষিণ সহযোগিতার আওতায় ভারত, মালয়েশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, থাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশের সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি প্রশিক্ষণ ও উচ্চশিক্ষার জন্য চুক্তির কথাও বলা হয়েছে।

জানা গেছে, স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা সম্পর্কিত দুদকের সুপারিশগুলো বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ১০ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্যসেবা ও স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বৈঠক করেন। বৈঠকে যেসব সিদ্ধান্ত হয়েছে, তা বাস্তবায়নের জন্য গত ৮ অক্টোবর স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা-১ শাখা থেকে চিঠি পাঠানো হয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে। চিঠিতে বলা হয়, দুদকের বার্ষিক প্রতিবেদন ২০১৬-এর সুপারিশ বাস্তবায়নে করণীয় কী, তা ঠিক করতে ১০ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৈঠকের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশক্রমে অনুরোধ জানানো হলো।

এদিকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা পাওয়ার পরই সুপারিশ বাস্তবায়নে কাজ শুরু করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এরই অংশ হিসেবে দ্বিতীয় নম্বর সুপারিশ বাস্তবায়নে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন প্রতিষ্ঠান সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যাল ইউনিটের (সিপিটিইউ) মহাপরিচালককে গত ১৪ নভেম্বর চিঠি দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সংস্থাটির পরিচালক (অর্থ) ডা. খাজা আব্দুল গফুর স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, দুদকের প্রতিবেদনের দ্বিতীয় নম্বর সুপারিশ বাস্তবায়নে সব ধরনের ক্রয় কার্যক্রমে ই-টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। এ জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আওতাধীন সব প্রতিষ্ঠান প্রধানকে ই-টেন্ডার বাস্তবায়নের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তাই টেন্ডার প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তা-কর্মচারীকে এ বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদানের ব্যবস্থা নিতে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে