হার মানল যুবরাজ

  সাইয়িদ মাহমুদ পারভেজ, কুমিল্লা

১৩ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭, ০১:০৫ | প্রিন্ট সংস্করণ

গত নভেম্বর মাসজুড়ে সংবাদমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচিত ‘যুবরাজ’ নামে কুমিল্লা চিড়িয়াখানার বৃদ্ধ সিংহটি অবশেষে হার মানল বয়সের কাছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে চিড়িয়াখানাতেই তার মৃত্যু হয়। যুবরাজের ময়নাতদন্তের জন্য চার সদস্যের একটি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে।

গত ১ নভেম্বর থেকে জাতীয় ও স্থানীয় গণমাধ্যম এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে চিড়িয়াখানার রুগ্ন সিংহটির ছবি নিয়ে তোলপাড় হয়। সংবাদ শিরোনামেও উঠে আসে এটি। এর পর চিড়িয়াখানার সংস্কার নিয়ে নড়েচড়ে বসে কর্তৃপক্ষ। শুরু হয় যুবরাজের চিকিৎসা।

কুমিল্লা চিড়িয়াখানায় এমনিতেই নেই উল্লেখযোগ্য পশু-পাখি। যে কটি আছে, সেগুলোও মুমূর্ষুপ্রায়। অধিকাংশ খাঁচাই শূন্য। একটু বৃষ্টি হলেই চিড়িয়াখানা পানিতে তলিয়ে যায়, ডুবে যায় এর প্রবেশপথও। এসব কারণে দর্শনার্থীও নেমে গেছে তলানিতে। গত পাঁচ বছর ধরে এ দুরবস্থা চলছে। চিড়িয়াখানাটি এখন অনেকটাই পরিত্যক্ত বাড়ির মতো। সর্বসাকল্যে আছে আট বানর, তিন বন মোরগ ও তিন হরিণ।

১৯৮৬ সালে কুমিল্লা নগরীর কালিয়াজুরি মৌজায় জেলা প্রশাসকের বাংলোর পাশে ১০.১৫ একর ভূমিতে গড়ে ওঠে কুমিল্লা চিড়িয়াখানা ও বোটানিক্যাল গার্ডেন। এর রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে কুমিল্লা জেলা পরিষদ। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার ভৌমিক বলেন, ‘যুবরাজ দীর্ঘদিন ধরে মুমূর্ষু ছিল। চিকিৎসকদের মতে, একটি সিংহ সাধারণত ১৪ বছর বাঁচে, যুবরাজের বয়স হয়েছিল ১৮ বছর। প্রাণীটি মূলত তার বাড়তি জীবনকাল অতিবাহিত করেছে। মঙ্গলবার সেটি মারা যায়।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আবদুল মান্নান বলেন, সদর দক্ষিণ উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. নাজমুল হককে আহ্বায়ক করে চার সদস্যের একটি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। তারা সিংহের শরীর থেকে প্রয়োজনীয় উপাদান সংগ্রহ করে তা ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকায় প্রেরণ করবেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে