রঙিন জার্সিতে নতুন শুরুর আশা মাশরাফিদের

  সুসান্ত উৎসব

২২ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ২২ জুলাই ২০১৮, ১১:৩৭ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রস্তুতি ম্যাচে পাওয়া জয়ে আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছেন বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। টেস্টের দুঃস্বপ্ন ভুলে সামনে তাকাচ্ছেন সাকিব-তামিমরা। মাশরাফির নেতৃত্বে রঙিন জার্সিতে নতুন শুরুর আশা টাইগারদের। গায়ানায় সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে মাঠে নামার আগে উজ্জীবিত বাংলাদেশ শিবির। কঠোর অনুশীলন করে নিজেদের প্রস্তুত

করেছেন স্কোয়াডে থাকা খেলোয়াড়রা। টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে হোয়াইটওয়াশ হলেও ওয়ানডেতে নিজেদের শক্তিমত্তা দেখাতে বদ্ধপরিকর মাশরাফিবাহিনী। আজ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় গায়ানায় তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে মাঠে নামবে বাংলাদেশ দল। জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করতে চান অধিনায়ক মাশরাফি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের শুরুটা বাংলাদেশকে ‘লজ্জা’ উপহার দিয়েছে! টেস্টে টাইগারদের ভরাডুবি হতাশ করেছে সমর্থকদের। বাংলাদেশের জন্য উইন্ডিজ সফর যে কঠিন হবে তা তো সবাই জানতেন। তাই বলে, এত বাজেভাবে দল হারবে? সাকিবের নেতৃত্বে মাঠে নামা বাংলাদেশ সিরিজের প্রথম টেস্ট হেরেছে আড়াই দিনে। ইনিংস ও ২১৯ রানে হারা ম্যাচে লজ্জার রেকর্ড গড়েছেন টাইগাররা। প্রথম ইনিংসে মাত্র ৪৩ রানে অলআউট হয়েছিল বাংলাদেশ; যা তাদের সর্বনিম্ন দলীয় ইনিংস। দ্বিতীয় টেস্টের সমাপ্তি ঘটে তৃতীয় দিনে। হার ১৬৬ রানে। বিশ্বকাপের ডামাডোলে এ নিয়ে খুব বেশি শোরগোল হয়নি।

তবে বাংলাদেশের পছন্দের ফরম্যাট ৫০ ওভারের ক্রিকেট। দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। টেস্টের হতাশা কাটিয়ে ওঠার লড়াইও শুরু উপলক্ষ ছিল কিংস্টনের প্রস্তুতি ম্যাচ। তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভাইস চ্যান্সেলর একাদশকে ৪ উইকেটে হারায় লাল-সবুজরা। মাশরাফি-সাকিব-তামিম অবশ্য প্রস্তুতি ম্যাচে খেলেননি। তার পরও গেইল-পাওয়েল-রাসেলদের মতো খেলোয়াড়দের নিয়ে গড়া দলকে হারানোটা বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের অনুপ্রেরণার টনিক হিসেবে কাজ করছে।

ছয় মাস পর আবার ৫০ ওভারের ক্রিকেট খেলবে বাংলাদেশ দল। সবশেষ জানুয়ারিতে দেশের মাটিতে ত্রিদেশীয় (বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে-শ্রীলংকা) সিরিজ খেলেছিল লাল-সবুজরা। যদিও ফাইনালে শ্রীলংকার কাছে ৭৯ রানে হেরে আরও একবার স্বপ্নভঙ্গের বেদনা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছিল মাশরাফি-সাকিবদের। এর পর আর ওয়ানডে খেলা হয়নি। দেশে ও দেশের বাইরে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি খেলেছেন টাইগাররা।

২০১৪ সালে বাংলাদেশ দল সবশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে গিয়েছিল। স্বাগতিকদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলেছিল। তবে জয়ের দেখা পায়নি। গ্রানাডার সেন্ট জর্জেস স্টেডিয়ামে ৩ উইকেটে হার দিয়ে সিরিজ শুরু করেছিল মুশফিকের দল। একই ভেন্যুতে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে হার ১৭৭ রানে। এর পর সেন্ট কিটসে সিরিজের শেষ ম্যাচে ৯১ রানে হেরে স্বাগতিকদের কাছে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা নিয়ে মাঠ ছেড়েছিল লাল-সবুজরা। চার বছর পর আবার দ্বিপক্ষীয় সিরিজের ৫০ ওভারের ক্রিকেটে মুখোমুখি বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বাংলাদেশ দল সিরিজের প্রথম দুই টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন অ্যান্টিগা ও জ্যামাইকায়। এবার তাদের ওয়ানডে মিশনের ভেন্যু গায়ানা। এখানে জয় দিয়ে ওয়ানডে সিরিজ শুরু করতে চান টাইগাররা। আর তাতে অনুপ্রেরণা প্রস্তুতি ম্যাচে পাওয়া জয়। কিংস্টনের ওই ম্যাচে রুবেল হোসেন (৩/৪০) ও মোসাদ্দেক হোসেন (৪/১৪) বল হাতে সফল ছিলেন। ব্যাটসম্যানরাও জ্বলে উঠেছিলেন। শান্ত (৪৩), লিটন (৭০), মুশফিকদের (৭৫*) ব্যাটে ৩৯ বল বাকি থাকতেই ম্যাচটি ৪ উইকেটে জিতে নেয় লাল-সবুজরা।

প্রথম ওয়ানডের জন্য বাংলাদেশের একাদশ মোটামুটি নিশ্চিত। তবে ওপেনিং নিয়ে কিছুটা দ্বিধাদ্ব›েদ্ব টিম ম্যানেজমেন্ট। প্রস্তুতি ম্যাচে এনামুল হক বিজয় রান পাননি। অন্যদিকে শান্ত ও লিটন দারুণ ব্যাটিং করেছেন। শান্তকে খেলানোর সম্ভাবনা ক্ষীণ। বিজয় ও লিটনের মধ্য কাকে তামিমের সঙ্গী হিসেবে ক্রিজে পাঠানো হবে তা নিয়ে দোটানায় টিম ম্যানেজমেন্ট।

জানা গেছে, উইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে বিজয়ের ওপরই আস্থা রাখছেন টিম ম্যানেজমেন্ট! তামিমের সঙ্গী হিসেবে ডানহাতি এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যানের খেলার সম্ভাবনাই প্রবল। তার পরও গায়ানার উইকেট দেখে শেষ সময়েই চ‚ড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে চান বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্ট।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে