এসকে সিনহা প্রশ্নে বিব্রত দুদক চেয়ারম্যান

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৩:৩২ | প্রিন্ট সংস্করণ

এসকে সিনহা ও ইকবাল মাহমুদ

সাবেক প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগের তদন্ত নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে ‘বিব্রতবোধ’ করলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। তিনি বলেন, আপনারা এমন একজন ব্যক্তির ব্যাপারে বলছেন, অনেক বড় ও বৃহৎ। আমাকে বিব্রত না করাটাই সবার জন্য ভালো।

কদিন আগে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানান, বিচারপতি সিনহার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ খতিয়ে দেখছে দুদক। এ কথার পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার সাংবাদিকরা দুদক চেয়ারম্যানের কাছে বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চান।

জবাবে ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘মাননীয় মন্ত্রী ওনার যা ইচ্ছা বলতেই পারেন। মাননীয় মন্ত্রীর কথায় তো মামলা হবে না, অনুসন্ধানও হবে না। সরকার নিজেরাই বলে স্বাধীন কমিশন। সো মাননীয় মন্ত্রী যা বলেছেন, ওনারটা উনাকেই জিজ্ঞাস করেন, আমাকে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘মন্ত্রীর কথায় কোনো প্রভাব দুদকে পড়বে না। এটা আমি গ্যারান্টি দিচ্ছি। যথাযথ এভিডেন্স ছাড়া কারো বিরুদ্ধে অনুসন্ধান বা তদন্ত হবে না।’

দুদক চেয়ারম্যান সাংবাদিকদের বলেন, ‘একবার আপনারা লিখেছেন, চার কোটি টাকা ইয়ে হয়েছে। সেটা দুজন ব্যক্তির বিরুদ্ধে একটা অনুসন্ধান। তাদের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে ঋণ প্রদান এবং ঋণের সেই টাকা অন্য কোথাও যাওয়া নিয়ে অনুসন্ধান চলছে। সেই টাকার ব্যাপারে পত্রিকায় আপনারা একটা ইঙ্গিত দিয়েছেন। আমরা কিন্তু কখনো বলিনি। অনুসন্ধান শেষ হলো না, দুদক থেকে এমন একটা কথা বেরিয়ে যাবে- দিস ইজ ভেরি আনফরচুনেট।’ সেই চার কোটি টাকার অনুসন্ধান দ্রুত শেষ করতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

এসকে সিনহার বিরুদ্ধে সুপ্রিমকোর্ট থেকে জানানো ১১টি অভিযোগ দুদকে এসেছে কিনা- জানতে চাইলে দুদক চেয়ারম্যান পাল্টা সাংবাদিকদের বলেন, ‘কই, আপনাদের কাছে ১১টি অভিযোগ আছে নাকি? থাকলে দেন।’

সাবেক ওই প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে দুদকে কোনো অনুসন্ধান চলছে কিনা- জানতে চাইলে ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘সেই প্রশ্নের জবাব এখন আমি দেব না। আপনাদের ওয়েট করতে হবে। আপনারা এভাবে একটা প্রশ্ন করলে আমার জন্য অসুবিধা হয়। কারণ আমাকে দেখতে হবে, বুঝতে হবে, জানতে হবে।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে