মায়ের ওপর অভিমানে ঢাবি ছাত্রীর আত্মহনন

  বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

১২ জানুয়ারি ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মায়ের কথায় অভিমান করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহনন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী। রাজধানীর নাখালপাড়ার নিজ বাসা থেকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় গতকাল ভোরে মহাসিনা মেধা নামে ওই ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে পরিবারের সদস্যরা। তিনি আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে। মেধা বাবা-মায়ের সঙ্গে নাখালপাড়ায় থাকতেন।

ছাত্রীর এক বান্ধবী জানান, বাবা-মায়ের সঙ্গে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে সে। ওই বান্ধবী বুধবার সকালে মেধার বাসায় গেলে তার মা প্রলাপ করে বলছিলেন, ‘রাত দুটোর দিকে মেধা মোবাইলের বাটন টিপছিল। তিনটার সময় তার কক্ষে গিয়েও দেখি সে মোবাইল টিপছে। তখন আমি বকাবকি করি। পরে ভোর চারটার সময় এসে দেখি মেয়ে মৃত। এতটুকু বকাবকিতে অভিমান করে মেয়েটি আত্মহত্যা করল।’

ছাত্রীর সহপাঠীরা জানান, মৃত্যুর আগে মেধা আত্মহত্যার কথা লিখে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছিলেন। এর কিছুক্ষণ পরেই ফেসবুক আইডিটি তিনি ডিএক্টিভেট করে দেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এএম আমজাদ বলেন, বুধবার ভোরে সম্ভবত মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে। গভীর রাতে নেট ব্রাউজিং করতে দেখে তার মা নাকি তাকে ‘বকা’ দিয়েছিল। সম্ভবত এ কারণেই সে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এহসানুল হক বলেন, ‘আমরা অফিসিয়ালি এখনো কিছু জানতে পারিনি। তবে বিভাগের কিছু শিার্থী মেধা নামে এক ছাত্রী পারিবারিক সমস্যার কারণে আত্মহত্যা করেছে বলে আমাকে জানিয়েছে।’

ওই ছাত্রীর বিভাগের কয়েকজন বন্ধু জানান, মেধার মৃত্যুর খবর শুনে তার বাসায় গেলেও তাকে তারা দেখতে পাননি। তাকে দাফনের জন্য কুমিল্লায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

 

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে