বায়রা লাইফ ইনসু্যুরেন্সের চেয়ারম্যানসহ ৬ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

  মাগুরা প্রতিনিধি

১৫ নভেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মাগুরায় প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের মামলায় বায়রা লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোহম্মদ আবুল বাশারসহ ৬ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার মাগুরার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত এ পরোয়ানা জারি করেন। মামলার অন্য আসামিরা হলেনÑ বায়রা লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানির এএমডি মোহম্মদ ওমর ফারুক, সিইও অমল কান্তি, সিএফও মামুন খান, ডিএমডি মোহম্মদ মিজানুর রহমান এবং কোম্পানির আরসি মোহম্মদ হাবিবুর রহমান।

মামলার বাদী বায়রা লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানি মাগুরা শাখার গ্রাহক স্বপন পান্ডে।

মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, বায়রা লাইফ ইনস্যুরেন্সে স্বপন পান্ডেসহ ৩৮ গ্রাহক ১০ বছর মেয়াদি জীবনবীমা করেন। তারা ২০০৫ সালের ৭ জুন থেকে নিয়মিত পলিসির অর্থ ইনস্যুরেন্সে জমা করতে থাকেন। মোট ৮ লাখ ৯২ হাজার ৬শ টাকা জমা হয়। ১০ বছর মেয়াদ অতিবাহিত হলে গত বছর ২০১৬ সালের ২১ সেপ্টেম্বর আসামিদের স্বাক্ষরিত রসিদ পান। সে সময় গ্রাহকদের জানানো হয় গ্রাহকদের জমাকৃত টাকা এবং মুনাফার টাকা এক মাসের মধ্যে ফেরত দেওয়া হবে। কিন্তু গ্রাহকদের টাকা ফেরত না দিয়ে ঘোরাতে থাকলে ইনস্যুরেন্স কোম্পানিকে আইনি নোটিশ পাঠান বাদী। কোম্পানি নোটিশ গ্রহণ করলেও জবাব দেয়নি। এ বছর ৬ জুলাই আসামিরা মাগুরা চৌরঙ্গী মোড়স্থ এরিয়া অফিস পরিদর্শন করতে আসেন। খবর পেয়ে বাদীসহ অন্য গ্রাহকরা চৌরঙ্গী মোড়ের এরিয়া অফিসে উপস্থিত হন। এ সময় জমাসহ মুনাফার টাকা ফেরত চাইলে তাদের সঙ্গে আসামিরা খারাপ ব্যবহার করে তাড়িয়ে দেন। এ বছর ১০ জুলাই ৩৮ জন গ্রাহকের পক্ষে স্বপন পান্ডে মাগুরা সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতে প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের মামলা করেন। আদালতের বিচারক ফিরোজ মামুন মামলা গ্রহণ করে সদর উপজেলা সমবায় কর্মকর্তার কাছে মামলাটি তদন্তের জন্য পাঠান। তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় গতকাল মঙ্গলবার আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন এবং ৩১ ডিসেম্বর মামলার পরবর্তী দিন ধার্য করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে