শাহ আমানতের রানওয়ে সম্প্রসারণ করা হবে -পর্যটনমন্ত্রী

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

১৪ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আগামী ৯ মাসে মধ্যে বাংলাদেশ বিমান ও পর্যটন খাতে দৃশ্যমান পরিবর্তন হবে। পরিবর্তনের প্রথম ধাপ হবে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের রানওয়ে ৮০০ মিটার সম্প্রসারণ করা। গত শুক্রবার রাতে চট্টগ্রামের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার পরিদর্শন শেষে চট্টগ্রাম চেম্বার নেতাদের সঙ্গে এক মতবিনিময়সভায় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রামে পর্যটনের অফুরন্ত সম্ভাবনা রয়েছে। চট্টগ্রামসহ বাংলাদেশের আকর্ষণীয় পর্যটন স্পটগুলো চিহ্নিতকরণ করে বিনিয়োগের লক্ষ্যে বেসরকারি উদ্যোক্তাদের সরকারি জায়গা লিজ দেওয়া হবে। এ খাতের উন্নয়নে চট্টগ্রাম চেম্বারকে লিখিত প্রস্তাবনা পাঠানোর অনুরোধ জানান মন্ত্রী।

মতবিনিময় সভায় চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের আধুনিকায়ন, সম্প্রসারণ ও আরও বেশি আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু করার ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রবাসী শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের বিমানবন্দরে বিশেষ সহায়তা প্রদান, চট্টগ্রাম, পার্বত্য চট্টগ্রাম, কক্সবাজারসহ সারা দেশে পর্যটন খাতের বিকাশে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ, পর্যটন স্পটগুলোতে নিরাপত্তা বৃদ্ধি, পর্যটন করপোরেশনের পুরনো মোটেল ভেঙে নতুন করে নির্মাণ, চট্টগ্রামের সঙ্গে রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি, কাপ্তাই ও বান্দরবানের মহাসড়ক ডাবল লেনে উন্নীতকরণ ও পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকতকে আধুনিক পর্যটন স্পট হিসেবে গড়ে তোলার দাবি জানান। তিনি বলেন, চট্টগ্রাম-চিয়াংমাই-ব্যাংকক রুট পুনরায় চালু করা এবং পর্যটন বিকাশের লক্ষ্যে চিয়াংমাইয়ের সঙ্গে চট্টগ্রামের জয়েন্ট সিটি প্রোগ্রাম চালু করার প্রস্তাব করেন তিনি।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বারের সভাপতি মনোয়ারা হাকিম আলী, চট্টগ্রাম চেম্বারের পরিচালক কামাল মোস্তফা চৌধুরী, ছৈয়দ ছগীর আহমদ, অঞ্জন শেখর দাশ, চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, বিকেএমইএর সাবেক পরিচালক শওকত ওসমান প্রমুখ।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে