গাজীপুর নির্বাচন নিয়ে বিএনপির বৈঠক

মেয়রপ্রার্থী হাসানের পক্ষে গণসংযোগ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৪ জুন ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

খুলনা সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতায় যেভাবে ভোট কারচুপি করেছিল গাজীপুরে তা সম্ভব হবে না। তাই মেয়রপ্রার্থী হাসানউদ্দিন সরকারের পক্ষে গণসংযোগ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। গতকাল বিকালে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে নেতারা এ কথা বলেন। গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ বৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও গাজীপুর সিটি নির্বাচনের প্রধান সমন্বয়ক ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বৈঠকে ছিলেন। ভোটের দিন কেন্দ্রেগুলোয় শেষ পর্যন্ত পোলিং এজেন্টদের থাকা নিশ্চিত করতে বেশ কিছু পরিকল্পনাও নেওয়া হয়েছে। যাদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট কোনো মামলা নেই তাদেরই পোলিং এজেন্ট করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৈঠকে নেতারা বলেন, খুলনা সিটি নির্বাচন আওয়ামী লীগের জন্য চ্যালেঞ্জ ছিল। কারণ আবদুল খালেক রাজি ছিলেন না। তাকে সংসদ সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ করিয়ে আওয়ামী লীগ

মেয়রপ্রার্থী করে। কিন্তু গাজীপুরের বিষয়টি ভিন্ন। এখানে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম দলেও জনপ্রিয় নয়, স্থানীয়ভাবেও নন। বিপরীতে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী হাসানউদ্দিন সরকার দলে এবং স্থানীয়ভাবে জনপ্রিয়। আর ধানের শীষের জনপ্রিয়তা তো আছেই। এ অবস্থায় নেতাকর্মীরা সাহস নিয়ে ফল ঘোষণা পর্যন্ত ভোটের মাঠে থাকলেই ধানের শীষের বিজয় হবেই। জানতে চাইলে বৈঠকে অংশ নেওয়া বিএনপির সহসাংগঠনিক আবদুস সালাম আমাদের সময়কে বলেন, আগামী ১৮ জুন থেকে গাজীপুরে প্রচার শুরু হবে। সেখানে ৫৭ ওয়ার্ডে কেন্দ্রীয় নেতাদের নেতৃত্বে প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে টিম রয়েছে। ওয়ার্ডভিত্তিক কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাদের যার যে কাজ তা সাহসের সঙ্গে সঠিকভাবে করতে বিএনপি মহাসচিব নির্দেশনা দিয়েছেন। গাজীপুর সিটি নির্বাচনের ফল ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত মাঠে থাকবে বিএনপি ও এর অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীÑ এ প্রতিশ্রুতও দিয়েছেন স্থানীয় নেতারা।

বৈঠকে আরও অংশ নেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বরকত উল্লাহ বুলু, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, শহিদুল ইসলাম বাবুল, গাজীপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী ছাইয়েদুল আলম বাবুল প্রমুখ। গাজীপুর সিটির ৫৭টি ওয়ার্ডে গণসংযোগ পরিচালনায় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরই ওয়ার্ডভিত্তিক এসব টিম গঠন করে বিএনপি।

বৈঠক সূত্রে জানা যায়, খুলনা সিটি নির্বাচনে যেসব ভুলক্রটি হয়েছে গাজীপুরে তা করা যাবে না। এখানে সতর্ক থাকতে হবে। ক্ষমতাসীনরা হামলা-মামলা যাই করুক তা মোকাবিলা করেই ভোটের দিন মাঠে থাকতে স্থানীয় নেতাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে