সিটি নির্বাচন

ঈদ আর বিশ্বকাপ ফুটবলের প্রভাব প্রচারে

সিলেট

  সজল ছত্রী, সিলেট

১৪ জুন ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৪ জুন ২০১৮, ০০:২০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হলেও আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারে নামতে পারছেন না সম্ভাব্য প্রার্থীরা। তার ওপর বড় দলগুলোতে মনোনয়ন নিয়ে কোন্দল চলছে অনেকটা প্রকাশ্যে। অন্যদিকে দোরগোড়ায় ঈদ আর ফুটবল বিশ্বকাপের উত্তাপের প্রভাব পড়েছে নির্বাচনী মাঠেও। সঙ্গে যোগ হয়েছে গরম আবহাওয়া।

জানা গেছে, মনোনয়ন নিয়ে দলীয় কোন্দলের কারণে পুরনো প্রার্থীরা রয়েছেন সতর্ক অবস্থানে। মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়ার আগে অতি-প্রচারে গিয়ে কোন্দল আরও বাড়াতে চাইছেন না তারা। অন্যদিকে নতুন প্রার্থীরা কর্মী-সমর্থকদের মাঠে নামালেও দলের ‘গুডবুকে’ থাকতে এখনই জোরদার প্রচারে যাচ্ছেন না। দলীয় মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়ার পরই আসল নির্বাচনী রাজনীতি শুরু হবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

রমজান মাসজুড়ে সিলেটে ইফতার মাহফিল কেন্দ্রিক ছিল সম্ভাব্য প্রার্থীদের রাজনীতি। বিভিন্ন ইফতার মাহফিলে যোগ দিয়ে সবার সঙ্গে কুশল বিনিময় করে ‘প্রচার’ চালিয়ে যান তারা। একেক দিন একেক পাড়ার মসজিদে নামাজ আদায় করে মুসল্লিদের সঙ্গেও চলে শুভেচ্ছা বিনিময়। এ ছাড়া কর্মী-সমর্থক ও পাড়া-মহল্লার মুরব্বিদের সঙ্গেও চলছে ঘরোয়া বৈঠক।

প্রচারে এগিয়ে রয়েছেন পুরনো দুই প্রার্থী আওয়ামী লীগের বদরউদ্দিন আহমদ কামরান এবং বিএনপির আরিফুল হক চৌধুরী। সাবেক ও বর্তমান এই দুই মেয়র জনগণের কাছাকাছি থাকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে তাদের দুজনেরই ‘ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস’ ফেলছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মহানগর কমিটির দুই সাধারণ সম্পাদক। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদের পক্ষে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীরা নগরীতে মোটরসাইকেল মহড়া দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে নতুন মুখের পক্ষে টানানো হয়েছে ব্যানার-ফেস্টুন।

অন্যদিকে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম হজ পালনে সৌদি আরব যাওয়ার আগে ঘন ঘন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে মতবিনিময় করে নিজের প্রার্থিতার পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন। এ সময় তিনি বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে নিজ দলের বিপক্ষে ‘ষড়যন্ত্রকারী’ হিসেবেও উপস্থাপন করেন।

তবে সবাই বলছেন, ঈদের পরই শুরু হবে মাঠের আসল লড়াই। কে পাবেন মনোনয়ন, আর কার পাল্লা হবে ভারীÑ বোঝা যাবে তখনই। ঈদের জামাতে স্থানীয় এমপি ও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের অংশগ্রহণ নিয়েও অনেকের আগ্রহ। ঈদের দিন অনেক কিছুই অনুধাবন করা যেতে পারে বলে মত তাদের। মন্ত্রী ও দুই মেয়র (সাবেক-বর্তমান) তিনজনেরই সিলেট শাহী ঈদগাহ ময়দানে ঈদের জামাতে অংশ নেওয়ার কথা।

এদিকে ফুটবল বিশ্বকাপের উত্তাপও ছড়িয়েছে নির্বাচনী আমেজে। সিলেট সিটির শক্তিশালী দুই সম্ভাব্য প্রার্থী কামরান ও আরিফ বিপরীত দুই দলের সমর্থক। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের বদরউদ্দিন আহমদ কামরানকে আগেও অনেকবার আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে দেখা গেছে। অন্যদিকে বিএনপির আরিফুল হক চৌধুরী ব্রাজিলের সমর্থক। বৃষ্টির কারণে বাতিল না হলে বুধবার (গতকাল) রাতেই সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে ফুটবল পায়ে লড়াইয়ে নামার কথা আরিফ-কামরানের। সিলেট ক্রীড়ালেখক সমিতি আয়োজন করেছে এই প্রীতিম্যাচের। যেখানে কামরান আর্জেন্টিনার এবং আরিফ ব্রাজিলের নেতৃত্ব দেবেন।

যোগাযোগ করা হলে বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, অবশ্যই মাঠে যাব। আবহাওয়া খুব বেশি খারাপ না হলে খেলতেও চাই।

সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান শারীরিকভাবে কিছুটা অসুস্থ হলেও মাঠে যাবেন জানিয়ে তিনি বলেন, আমি ক্রীড়াপ্রেমী মানুষ। শারীরিক কারণে যদি মাঠে নামতে নাও পারি, সবাইকে উৎসাহ দেওয়ার জন্য হলেও মাঠে যাব।

রাত সাড়ে ১০টায় অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ম্যাচটি। অনেক পাঠক হয়তো এ প্রতিবেদন পড়ার আগেই ফুটবল মাঠের জয়-পরাজয়ের খবর জেনে যাবেন। তবে নির্বাচনী লড়াইয়ের ফলাফল জানতে অপেক্ষা করতে হবে আরও কিছুদিন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে