মির্জাগঞ্জে ইউএনওর হাতে ঘুষসহ আটক সার্ভেয়ার

দরিদ্রদের জন্য সরকারি আবাসন প্রকল্প

  মির্জাগঞ্জ প্রতিনিধি

০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মো. বেলায়েত হোসেন দরিদ্রদের জন্য সরকারি আবাসন প্রকল্পের ঘর দেওয়ার নামে নেওয়া টাকাসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইকবাল হোসেনের হাতে আটক হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটে গত বুধবার বিকালে উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ারের কক্ষে।

ওইদিন উপজেলার দেউলী এলাকা থেকে আসা বৃদ্ধ ফুলবানু (ছদ্মনাম) উপজেলা পরিষদ চত্বরে একটি নারিকেল গাছের নিচে বসে ছিলেন। তাকে দেখে অফিসে ডেকে নেন ইউএনও মো. ইকবাল হোসেন এবং সমস্যার কথা শোনেন। পরে বৃদ্ধাকে দেউলী আবাসন প্রকল্পের একটি ঘর দেওয়ার কথা বলে উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মো. বেলায়েত হোসেনের কাছে পাঠান। সেখানে গেলে ঘরের জন্য বৃদ্ধার কাছে ১০ হাজার টাকা দাবি করেন সার্ভেয়ার। পরে বৃদ্ধা ইউএনওর কক্ষে যান। কিন্তু তাকে না পেয়ে আবারও নারিকেল গাছের নিচে বসে অপেক্ষা করতে থাকেন। অফিসিয়াল কাজ শেষ করে ইউএনও দুপুরের পর বাসার যাওয়ার পথে বৃদ্ধাকে দেখে ঘর পাওয়ার বিষয়টি জানতে চান। বৃদ্ধা টাকা ছাড়া ঘর না পাওয়ার বিষয়টি জানান। ইউএনও তাৎক্ষণিক তাকে অফিসে ডেকে নিয়ে নিজের বেতনের ৬ হাজার টাকা বৃদ্ধার হাতে দেন। ইউএনও টাকার গায়ে তার মোবাইল নম্বর লেখে দেন ও টাকার নম্বরগুলো লেখে রাখেন। এরপর অন্য একজনের মোবাইল ফোনে সার্ভেয়ারকে বৃদ্ধা ফোন করে জানান, তিনি ১০ হাজার টাকা জোগাড় করতে পারেননি। মাত্র ৬ হাজার টাকা জোগাড় করেছেন। ওই টাকা নিয়ে বৃদ্ধা ভূমি অফিসে গিয়ে সার্ভেয়ারের হাতে দেন। কিছুক্ষণ পর ইউএনও ভূমি অফিসে গিয়ে টাকাসহ সার্ভেয়ারকে ধরে ফেলেন এবং উত্তম-মাধ্যম দেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সার্ভেয়ার মো. বেলায়েত হোসেন জানান, তিনি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরের ব্যাপারে কোনো টাকা নেননি। তাকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে ফাঁসানো এবং শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়েছে।

ইউএনও মো. ইকবাল হোসেন জানান, আবাসন ঘর পেতে টাকা লাগে না। যে টাকা লাগে তাও অসহায় মানুষকে সরকার দিচ্ছে। তবে অসহায় মানুষের কাছ থেকে যারা আবাসনের জন্য টাকা নেবেÑ সে যেই হোক, তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে