একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র শাকিব খান-অপু বিশ্বাস

  ফয়সাল আহমেদ

৩১ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলা চলচ্চিত্রের সুপারস্টার শাকিব খান ও চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের বিয়ে, সন্তান ও বিচ্ছেদ চলতি বছরের সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা। যার শুরু ১০ এপ্রিল। সেদিন একটি বেসরকারি টেলিভিশনে আবেগাপ্লুত কণ্ঠে শাকিব খানের সঙ্গে নিজের বন্ধুত্ব, সম্পর্ক ও বিয়ের তথ্য প্রকাশ করেন অপু বিশ্বাস। ‘আমি শাকিবের স্ত্রী...। আমার সন্তান আব্রাম খান জয়ের বাবার নাম শাকিব খান।’ ছেলেকে কোলে নিয়ে যেন ‘লাইভ বোমা ফাটালেন’। সঙ্গে সঙ্গে হইচই পড়ে যায় সারা দেশে। মাশরাফির অবসর, প্রতিরক্ষা স্মারক, তিস্তা চুক্তি... সব ইস্যু ছাপিয়ে ভার্চুয়াল জগৎ সরব হয় অপু বিশ্বাসকে নিয়ে। ফেসবুকে ঝড়। অপু বিশ্বাসের স্বপ্নভঙ্গের কাহিনিতে দেশের শীর্ষ নায়ক নিমিষেই পরিণত হন ‘ভিলেনে’।

এ ব্যাপারে শাকিব বলেছিলেন, ‘আমি অপুকে বিয়ে করেছি। আমাদের একটি সন্তানও আছে। এগুলো আমি অস্বীকার করছি না। আমি তাকে প্রতিমাসে কোটি টাকা দিচ্ছি। কিন্তু সে নায়িকা হতে চায়। আর আমি এটা এখনই চাচ্ছি না। আমি আমার সন্তানকে নিয়ে নেব। তবে অপু যদি এমন করে, তাকে মেনে নেব না।’ তিনি আরও বলেন, ‘এগুলো আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। আর কারা এই যড়যন্ত্র করছে, সেটা কিছুদিনের মধ্যেই আপনারা জানতে পারবেন।’

এরপর অপু ও আব্রামকে নিয়ে শুরু হয় শাকিব খানের সংসার। কিন্তু কিছুদিন পর জানা যায় তারা আলাদা থাকছেন। শাকিব থাকেন তার গুলশানের বাড়িতে আর অপু সন্তান নিয়ে নিকেতনে। এভাবেই চলতে থাকে। চলে আসে রোজার ঈদ। সাবার ধারণা ছিল, ঈদে অন্তত এ সমস্যার স্থায়ী সমাধান হবে। কিন্তু শাকিব শুটিং করতে চলে যান দেশের বাইরে। কোরবানির ঈদে শাকিব দেশে থাকলেও অপুর সঙ্গে দেখা করেননি। ঈদের দিন সন্তানকে নিজের কাছে রাখেন। এর মধ্যে এই শাকিব-অপু গল্পে আসে নতুন চরিত্র। নাম শবনম বুবলি। দীর্ঘ সময় লোকচক্ষুর আড়ালে থাকার সময়ে শাকিব তার নতুন নায়িকা হিসেবে বেছে নেন এই টিভি উপস্থাপিকাকে। অপুর দাবি, তার ছেড়ে যাওয়া সিনেমাতেই মূলত কাজ করার সুযোগ পায় বুবলি। এ ছাড়া বুবলিকে নিয়ে অনেক কথা বলেছেন অপু। ছাড় দেননি বুবলিও। মিডিয়াপাড়ায় সারা বছর গুঞ্জন ছিলÑ অপুকে তালাক দিয়ে বুবলিকে বিয়ে করবেন শাকিব।

যার প্রমাণ পাওয়া যায় ৪ ডিসেম্বর। সেদিন অপুকে ডিভোর্স লেটার পাঠিয়ে শুটিং করতে ভারত চলে যান শাকিব খান। শাকিবের একজন নিকটাত্মীয় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। শাকিব খান তার আইনজীবীর মাধ্যমে তিন দিন আগে অপুর নিকেতনের বাসায় তালাকনামা পাঠিয়েছেন। তবে এই তালাক কার্যকর হবে তিন মাস পর। এখন এই তিন মাসে ‘শাকিব-অপু পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র’তে আরও কোনো গল্প বা চরিত্র যোগ হয় কিনা, সেটাই দেখার বিষয়।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে