সুপ্রিমকোর্টের সামনে থেকে ‘লেডি জাস্টিস’ ভাস্কর্য স্থানান্তর

  আসাদুর রহমান

৩১ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হেফাজতে ইসলামসহ ইসলামি সংগঠনগুলোর দাবির মুখে সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে সরিয়ে নেওয়া হয় ন্যায়বিচারের প্রতীক হিসেবে স্থাপিত ‘লেডি জাস্টিস’ ভাস্কর্যটি। গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর স্থাপিত গ্রিক দেবী থেমিসের আদলে গড়া ন্যায়বিচারের প্রতীক ‘লেডি জাস্টিস’ ভাস্কর্যটিতে ছিল চোখ বাঁধা এক নারীর ডান হাতে তলোয়ার, বাম হাতে দাঁড়িপাল্লা। তলোয়ারটি নিচের দিকে নামানো আর দাঁড়িপাল্লাটি পরিমাপ করছে এমন ভঙ্গিতে ধরা। এটি স্থাপনের পর থেকেই ‘ গ্রিক দেবীর মূর্তি’ আখ্যা দিয়ে অপসারণের দাবি করে আসছিল হেফাজতে ইসলাম। ফেব্রুয়ারির শুরুতে ভাস্কর্যটি সরানোর দাবিতে কর্মসূচি ঘোষণা করে তারা। ১৪ ফেব্রুয়ারি প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা বরাবর স্মারকলিপি দেয় সংগঠনটি। পাশাপাশি পবিত্র রমজান মাস শুরুর আগেই ভাস্কর্যটি না সরালে আন্দোলনের হুমকি দিয়ে আসছিল ধর্মভিত্তিক দলগুলো। এর পর ১১ এপ্রিল হেফাজতের আমির শাহ আহমদ শফী নেতৃত্বাধীন এক দল ওলামার সঙ্গে গণভবনে বৈঠকে শেখ হাসিনা ভাস্কর্যটি সরাতে পদক্ষেপ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেছেন, এটি সরাতে তিনি প্রধান বিচারপতির সঙ্গে কথা বলবেন।সুপ্রিমকোর্টের সামনেই ঈদগাহ থাকার বিষয়টি তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, লাগানো যখন হয়েছে... এখানে অসুবিধা হলো ঈদগাহ। সেখানে আমাদের ঈদের নামাজ হয়। ঠিক সেই সময়টায় সামনে এসে পড়ে। সবার মনমানসিকতা তো এক নয়। নামাজের সময় এটা চোখে পড়বে। এরপর রমজান শুরুর ৩ দিন আগে ২৬ মে মধ্যরাতে ভাস্কর্যটি সুপ্রিমকোর্টের মূল ফটক থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়। ন্যায়বিচারের প্রতীক ভাস্কর্যটি অপসারণ নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থী, সংস্কৃতিকর্মী এবং বামপন্থি ছাত্র সংগঠনের কর্মীরা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেন। এর ৪৮ ঘণ্টা পর শনিবার মধ্যরাতে অ্যানেক্স ভবনের সামনে এটি পুনঃস্থাপন করা হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে