বার্সেলোনা-রিয়ালে আলোকিত রাশিয়া

  আলী ইমাম সুমন

৩০ জুন ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রিয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনার খেলোয়াড়েরা এবারের বিশ্বকাপের মঞ্চেও বেশি আলো ছড়াচ্ছেন। এর মধ্যে বার্সেলোনার ১৪ জন এবং রিয়ালের ১২ জন খেলোয়াড় দেশের হয়ে বিভিন্ন দলে প্রতিনিধিত্ব করছেন।

বার্সেলোনা : বার্সেলোনার ফিলিপে কোটিনহো গ্রুপপর্বে ব্রাজিলের প্রতিটি ম্যাচেই গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। প্রথম ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে তার গোলেই ১ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল। দ্বিতীয় ম্যাচে কোস্টারিকার বিপক্ষে ৯০ মিনিট পর্যন্ত কোনো গোল পায়নি ‘সেলেসাও’রা। ড্র করে মাঠ ছাড়ার আশঙ্কার মধ্যেই ত্রাতা সেই কোটিনহো। যোগ করা সময়ের এক মিনিটে করা তার গোলে হাফ ছেড়ে বাঁচে ব্রাজিল। তৃতীয় ম্যাচে পাওলিনহোর গোলেও রয়েছে তার ‘অ্যাসিস্ট’। এবার বার্সার এই দুই খেলোয়াড়ের গোল পুঁজি করেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিশ্চিত করেছে ব্রাজিল।

স্পেনের হয়ে খেলছেন বার্সার ৪ খেলোয়াড় জেরার্ড পিকে, ইনিয়েস্তা, বুসকেটস ও জোডি আলবা। এই চারজনই খেলছেন মূল একাদশে। গোল করাতে রাখছেন অবদান। গ্রুপ ‘ডি’তে নিজেদের শক্তি দেখিয়েছে ক্রোয়েশিয়া। তাতে বড় অবদান রাখছেন বার্সার ইভান রাকিটিচ। আর্জেন্টিনাকে ৩-০ গোলে হারানোর দিনে একটি গোল করেছেন তিনি। আর্জেন্টিনার হয়ে খেলছেন বার্সালোনার সবচেয়ে বড় তারকা লিওনেল মেসি। প্রথম দুই ম্যাচে না জ্বলে উঠলেও নাইজেরিয়ার জালে অসাধারণ এক গোল করেছেন, দলও উঠেছে নকআউট পর্বে। পোল্যান্ডের সঙ্গে ৩-০ গোলে জয়ের ম্যাচে কলম্বিয়ার হয়ে লক্ষ্য ভেদ করেছেন বার্সার ইয়েরি মিনা। সেনেগালের বিপক্ষেও গোল করেছেন তিনি। ফ্রান্সের মূল দলে খেলছেন বার্সার উমতিতি ও উসমানে ডেমবেলে। বার্সালোনার চমক, ৯টি দেশের হয়ে তাদের খেলোয়াড়রা বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছেন। যেটি কিনা একটি ক্লাব থেকে এবারের বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ।

রিয়াল মাদ্রিদ : স্পেন জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের ৬ খেলোয়াড় সার্জিও রামোস, দানি কারভাহাল, ইসকো, মার্কো এসেনসিও, নাচো, লুকাস ভাসকেজ। সবাইকে একাদশে খেলাচ্ছেন কোচ ফার্নান্দো হিয়েরো। স্পেনের দ্বিতীয় ম্যাচে ইসকো দেখা পেয়েছেন গোলের। এবারের বিশ্বকাপে অন্যতম ফেভারিট ব্রাজিল দলের হয়ে আলো ছড়াচ্ছেন মার্সেলো ও ক্যসামিরো। রিয়াল মাদ্রিদের সবচেয়ে বড় তারকা অবশ্য পর্তুগালের। স্পেনের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করে রোনালদো বুঝিয়ে দিয়েছেন শুধু চ্যাম্পিয়নস লিগে নয়, বিশ্বকাপেও তিনি প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দিতে প্রস্তুত। আবার ক্রোয়েশিয়ারও আশা-ভরসার প্রতীক রিয়াল মাদ্রিদের লুকা মদ্রিচ। তিনি দলের মাঝমাঠের মূল ভরসা। আর্জেন্টিনাকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দেওয়ার ম্যাচে মনে রাখার মতো একটি গোল করেছেন তিনি।

এদিকে দল বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিলেও গতবারের মতো এবারও রিয়ালের গোলকিপার কেলর নাভাস ছিলেন কোস্টারিকার গোলপোস্টের অন্যতম ভরসা। অন্যদিকে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে হেরে বিদায় নিলেও দলটির অন্যতম ভরসা হয়েছিলেন রিয়ালের টনি ক্রুস। দলের জয় পাওয়া একমাত্র ম্যাচেও ত্রাতা ছিলেন এই টনি ক্রুস।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে