বোমা ফাটালেন মুশফিক

মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলা শেখার কোর্স করছি

  ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৯ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:২০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ টেস্ট দলের অধিনায়কের দায়িত্ব থেকে মুশফিকুর রহিমকে অব্যাহতি দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিষয়টিকে তিনি ভালোভাবে নেননি। জাতীয় দলের এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান ‘বিস্ফোরক’ মন্তব্য করেছেন! ক্ষোভ ঝেড়েছেন মিডিয়ার ওপরও।

বিসিবি পরিচালক জালাল ইউনুস ও মুশফিকুর রহিম মিলে রেস্টুরেন্ট ব্যবসা শুরু করলেন। গতকাল ‘কড়াই এন কারি’ রেস্টুরেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সংবাদকর্মীরা কথা বলতে চান মুশফিকের সঙ্গে। তবে সবাইকে অবাক করে দিয়ে এদিন তিনি সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কোনো কথাই বলেননি। মুখে কুলুপ আঁটলেও তিনি যে বেশ ক্ষুব্ধ, তা তার চেহারায় স্পষ্ট ফুটে উঠেছিল। যাওয়ার সময় রাগত স্বরে শুধু বললেন, ‘আমি এখন মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলা শেখার জন্য কোর্স করছি। আগে শিখে নিই, তার পর কথা বলব।’

মুশফিকের ক্যাপ্টেনসি বরাবরই প্রশ্নবিদ্ধ ছিল! সাউথ আফ্রিকা সিরিজে দলের ভরাডুবির পরই আভাস পাওয়া গিয়েছিল, তাকে ক্যাপ্টেনের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হতে পারে। তা সত্যিও হয়েছে। কিছুদিন আগে অনুষ্ঠিত বিসিবির সভা শেষে নাজমুল হাসান পাপন জানিয়ে দেন, এখন থেকে মুশফিক আর টেস্ট দলের ক্যাপ্টেন নন। বিসিবি সভাপতি বলেছেন, আমরা চাই ও ওর ব্যাটিংয়ের দিকেই আরও মনোযোগী হোক। নতুন দলপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সাকিবকে। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের ডেপুটি হিসেবে কাজ করবেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে, মুশফিক কি গণমাধ্যমের ওপর ক্ষুব্ধ নাকি বিসিবি কর্তাদের ওপর? কেননা গণমাধ্যমে মুশফিককে নিয়ে এমন কোনো কিছু লেখা হয়নি, যে কারণে তিনি ক্ষুব্ধ হতে পারেন! তবে হঠাৎ করে তাকে অধিনায়কের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়াটা তার হয়তো সম্মানে আঘাত হেনেছে। সে কারণে কি পরোক্ষভাবে ক্ষোভটা ঝাড়লেন বিসিবির ওপরই? অনেকে আবার বলছেন, তাকে নিয়ে খালেদ মাহমুদ সুজনের করা মন্তব্যের জবাবও হতে পারে এটা। তা কী বলেছিলেন বিসিবির এ পরিচালক? কিছুদিন আগেই খালেদ মাহমুদ বলেন, ‘সাউথ আফ্রিকা সিরিজের কিছু সিদ্ধান্ত ছিল খুবই বিতর্কিত। বাংলাদেশ কেন টসে জিতে ব্যাটিং বা বোলিং করবে, সেটা নিয়ে এ রকম দ্বিধা থাকতে পারে না। এ রকম যখন দোটানা, এটা ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্ত না অধিনায়কেরÑ এটা যখন পরিষ্কার হতে পারি না, তখন এটা বিতর্কিত।’

এর আগে মুশফিকের অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন বোর্ড সভাপতিও। মাশরাফির সঙ্গে তুলনা করে নাজমুল হাসান পাপন বলেছিলেন, ‘মাশরাফিও তো অধিনায়কত্ব করে। ওর তো কোনো সমস্যা হয় না! তা হলে মুশফিকের হয় কেন? আমি তো মনে করি, সমস্যা ওর মাঝেই।’

অস্ট্রেলিয়ার পর সাউথ আফ্রিকা সিরিজেও গণমাধ্যমের কাছে ‘ঘরের বেশকিছু কথা’ ফাঁস করে দিয়েছিলেন মুশফিক। বিষয়টিকে ভালোভাবে নেননি বিসিবি কর্তা ও টিম ম্যানেজমেন্ট। মিডিয়ায় বিতর্কিত মন্তব্য করার জেরেই যে তার ক্যাপ্টেনসি কেড়ে নেওয়া হয়েছে, এটাও বলছেন অনেকে! তবে মুশফিক তো আর সরাসরি বিসিবি কর্তা কিংবা টিম ম্যানেজমেন্টের ওপর নিজের ক্ষোভটা ঝাড়তে পারেন না। তাই মনের ভেতরে পুষে রাখা রাগটা মিডিয়ার ওপরই উগড়ে দিলেনÑ এমনটাও বলছেন অনেকে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে