হারে শুরু হাথুরুর লংকান অধ্যায়

  সুসান্ত উৎসব

১৮ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৮ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:৪৭ | প্রিন্ট সংস্করণ

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম দেখল শততম ওয়ানডে। তবে মাইলফলকের ম্যাচে দর্শকের আসনে বাংলাদেশ। কিন্তু কেন? নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, এ মুহূর্তে আমাদের মূল ফোকাস জয়ের দিকে। আমরা এখন পর্যন্ত তিন জাতির কোনো টুর্নামেন্টের শিরোপা জিততে পারিনি। এবার সুযোগ এসেছে। আমরা চ্যাম্পিয়ন হতে চাই।

অবশ্যই বাংলাদেশের সামনে সুযোগ থাকছে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার। তবে সূচিতে শততম ওয়ানডেতে বাংলাদেশের ম্যাচ রাখা হলে কি চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কক্ষপথ থেকে সরে যেতেন মাশরাফি-সাকিবরা? সে প্রশ্নের আপাতত উত্তর নেই। তবে আয়োজক দেশ হওয়ার পরও মাইলফলকের ম্যাচে মাশরাফি-তামিম-মুশফিককে দর্শকের আসনে দেখাটা বিসিবির ব্যর্থতারই পরিচয় দেয়! শততম ওয়ানডে ম্যাচকে নিয়ে বিসিবির তেমন কোনো আয়োজনও চোখে পড়েনি। ৪৬ জন মাঠকর্মীকে জ্যাকেট উপহার দেওয়া হয়েছে। তাতে লেখা ছিল ‘শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের ১০০তম ওয়ানডে’। এ ছাড়া প্রেসবক্সে উপস্থিত সংবাদকর্মীদের জন্য স্বাক্ষরবোর্ডের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। সেখানে লেখা ছিল ‘আই ওয়াজ হিয়ার’।

প্রথম ম্যাচের পর ত্রিদেশীয় সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও গ্যালারিতে নেই উত্তাপ। অবশ্য দর্শকহীন ম্যাচে উত্তাপ ছড়িয়েছেন জিম্বাবুয়ে দলের ক্রিকেটাররা। ব্যাটে-বলে দারুণ পারফরম্যান্স করেছেন মাসাকাদজা, রাজা, চাতারারা। তার পুরস্কারও পেয়েছেন। বাংলাদেশের কাছে বড় ব্যবধানে হারলেও নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে ১২ রানের জয় তুলে নিয়েছে জিম্বাবুয়ে। শ্রীলংকার কোচ হিসেবে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের প্রথম অ্যাসাইনমেন্ট ত্রিদেশীয় সিরিজ। তবে প্রথম পরীক্ষায় ফেল করলেন বাংলাদেশের সাবেক কোচ। চাতারা, ক্রেমার, জারভিসদের সামনে নিজেদের মেলে ধরতে পারেননি হাথুরুর শিষ্যরা। ২৯১ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নামা শ্রীলংকা ৪৮.১ ওভারে ২৭৮ রানে অলআউট হয়। চেষ্টা করেছিলেন কুশল পেরেরা (৮০), ম্যাথুস (৪২), চান্দিমাল (৩৪)। সাতে নেমে দলের হয়ে হাল ধরেছিলেন থিসারা পেরারাও। দলীয় ২৭৫ রানের সময় তিনি আউট হন। পেরেরা (৬৪) উইকেটে থাকলে হয়তো জয় নিয়েই মাঠ ছাড়তে পারত শ্রীলংকা! ৩৩ রানে ৪ উইকেট পান চাতারা। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা জিম্বাবুয়ে ২৯০ রানের পুঁজি পায় মাসাকাদজা (৭৩) ও ম্যাচসেরা সিকান্দার রাজার (৮১*) ব্যাটে। উদ্বোধনী জুটিতেই দলীয় স্কোরকার্ডে ৭৫ রান জমা করেন মাসাকাদজা-মিরে (৩৪) জুটি। এ ছাড়া টেলর ৩৮ ও ওয়ালার ২৯ রান করেন। গুনারতেœ সর্বোচ্চ ৩ উইকেট পান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

জিম্বাবুয়ে : ৫০ ওভারে ২৯০/৬ (মাসাকাদজা ৭৩, সিকান্দার রাজা ৮১*; গুনারতেœ ৩/৩৭)। শ্রীলংকা : ৪৮.১ ওভারে ২৭৮/১০ (কুশল পেরারা ৮০, থিসারা পেরারা ৬৪; চাতারা ৪/৩৩)।

ফল : জিম্বাবুয়ে ১২ রানে জয়ী। ম্যাচসেরা : সিকান্দার রাজা।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে