সামনেই দৃষ্টি তামিমের

  ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০১:২২ | প্রিন্ট সংস্করণ

তিন জাতির টুর্নামেন্টের (জিম্বাবুয়ে-শ্রীলংকা-বাংলাদেশ) পর শ্রীলংকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজেও বাজেভাবে হেরেছে বাংলাদেশ দল। দেশের মাটিতে সাফল্যের ভেলায় ভাসতে থাকা দলটির হঠাৎ করে এভাবে ডুবে যাওয়ার কোনো ব্যাখ্যা মিলছে না! প্রশ্ন উঠেছে, তা হলে কি টাইগারদের সাফল্যের সকল কৃতিত্বই চন্ডিকা হাথুরুসিংহের?

প্রায় সাড়ে তিন বছর বাংলাদেশের হেড কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন হাথুরুসিংহে। তার সময়েই দেশে (২০১৫-১৭) ও দেশের বাইরে সাফল্য পেয়েছেন টাইগাররা। দেশের মাটিতে বাংলাদেশকে তো বলা হচ্ছিল সত্যিকারের ‘বাঘ’! তবে হাথুরুসিংহে চলে যাওয়া পরই ছন্দপতন। পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে মাঠে নামার পরও নতুন বছরে খর্বশক্তির শ্রীলংকার কাছে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে হেরেছে বাংলাদেশ। টেস্টেও করুণ পরিণতি বরণ করতে হয়েছে মাহমুদউল্লাহদের।

চট্টগ্রাম টেস্ট কোনো রকম বাঁচাতে পারলেও ঢাকা টেস্টে আড়াই দিনেই পরাজয় বরণ করে মাথা নিচু করে মাঠ ছাড়তে হয়েছে স্বাগতিকদের। অথচ এই মিরপুরেই ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দলকে টেস্টে প্রথমবারের মতো হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

ওয়ানডে, টেস্টের পর টাইগারদের সামনে এখন টি-টোয়েন্টি সিরিজ। ক্ষুদ্র ভার্সনের জনপ্রিয় এ ক্রিকেটেও মাহমুদউল্লাহ বাহিনীকে কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে। টানা দুই সিরিজ জিতে ছন্দে থাকা হাথুরুসিংহের শ্রীলংকা যে টি-টোয়েন্টিতে শক্তিশালী দল। অবশ্য অতীত ভুলে এখন সামনেই দৃষ্টি তামিম ইকবালের।

বাংলাদেশের ড্যাশিং এ ওপেনার গতকাল সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘নতুন সিরিজ। ভিন্ন ফরম্যাট। আমাদের সবার লক্ষ্য ভালো খেলা। যদি আমরা আমাদের সেরাটা দিতে পারি আশা করি টি-টোয়েন্টি সিরিজ খুব আকর্ষণীয় হবে।’

শ্রীলংকা দলকেও সমীহ করছেন তামিম ইকবাল। তিনি বলেন, ‘গত কদিনে মনে হচ্ছে তারা ভালো করছে। তারা অভিজ্ঞতা ও তারুণ্যের মিশ্রণ, কিছুটা আমাদের মতোই। আমি কোনো দলকেই এগিয়ে রাখছি না। আমি মনে করি, দুই দলই সমান সামর্থ্যরে, মাঠে যারা ভালো খেলবে তারাই জিতবে।’ ওপেনিং জুটির শুরুটা গুরুত্বপূর্ণ বলে আরও একবার জানালেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান, ‘সব ফরম্যাটেই শুরুটা গুরুত্বপূর্ণ।’ একদিন আগেই গণমাধ্যমের সমালোচনা করেছেন দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন। তামিম অবশ্য বলছেন ভিন্ন কথা। তিনি বলেন, ‘উনি (খালেদ মাহমুদ) কী বলেছেন সে বিষয়ে আমার না যাওয়াই ভালো হবে। মিডিয়ার আউটবার্স্ট আমি এতটুকু বলতে পারি, সমালোচনা সব বেশি সব জায়গায় হয়। আমার কাছে দল হিসেবে, ম্যানেজমেন্ট হিসেবে আমরা স্ট্রং থাকি, সেটাই বড় কথা। মিডিয়াও খুবই ইমপরট্যান্ট পার্ট, বিশেষ করে এখন। আমরা আমাদের কাজ করি, মিডিয়া মিডিয়ার কাজ করুক। আমাদের নিজেদের কাজেই মনোযোগ থাকা উচিত।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
close