মাহমুদউল্লাহর মন্ত্র অনুপ্রেরণা ও স্বাধীনতা

  ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ইনজুরি ছিটকে দিয়েছে সাকিব আল হাসানকে। তাই শ্রীলংকার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতেও বাংলাদেশ দলের নেতৃত্বের ভার কাঁধে পড়েছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ওপর। অধিনায়কের দায়িত্ব পেলেও সাকিবের পর তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিমের ইনজুরিতে চিন্তিত মাহমুদউল্লাহ। বাঁ-হাতে চোট পেয়েছেন তামিম। হাতের কব্জিতে চোট মুশফিকের। যদিও মাহমুদউল্লাহ প্রত্যাশা করছেন, এ ছোট ইনজুরি কাটিয়ে খেলবেন তারা।

ইনজুরি-জর্জরিত বাংলাদেশ দল। এর মধ্যে টি-টোয়েন্টি দলে নতুন ক্রিকেটার নেওয়া হয়েছে ৬ জন। তবে যে টিম কন্ডিশন নিয়ে মাঠে নামুক বাংলাদেশ, ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যাশা থাকবে। খেলোয়াড়দের কাছ থেকে সেরাটা বের করে নিতে মাহমুদউল্লাহর মন্ত্র হলোÑ অনুপ্রেরণা ও স্বাধীনতা। গত বিপিএলে দারুণ নেতৃত্ব দিয়েছিলেন খুলনা টাইটান্সকে। সব সময় খেলোয়াড়দের উৎসাহ দিয়েছিলেন, স্বাধীনতা দিয়েছিলেন। এজন্য দারুণ সাফল্য পেয়েছেন। এই মন্ত্র নিয়েই শ্রীলংকার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে মাঠে নামবেন মাহমুদউল্লাহ। তিনি বলেন, আমার তরফ থেকে চেষ্টার কমতি থাকবে না। সব সময় যেভাবে চেষ্টা করি সবার ভেতর থেকে সেরাটা বের করে আনার, এবারও সেটিই চেষ্টা করব। আমি সব সময় বিশ্বাস করি, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সবাইকে অনুপ্রেরণা জোগাতে ও স্বাধীনতা দিতে না পারলে পারফর্ম করার সুযোগটা কম। চেষ্টা করব মাঠের ভেতরে ও বাইরে সেই ব্যাপারগুলো করার। মাহমুদউল্লাহ আরও জানান, টি-টোয়েন্টিতে নবীন ক্রিকেটাররা ভালো করলে সুযোগ থাকছে ২০২০ সালের বিশ্বকাপে খেলার। এ জন্য তরুণদের খেলাটা উপভোগ করে সেরাটা দিতে হবে।

টি-টোয়েন্টি দলে জায়গা পাওয়া নতুন ক্রিকেটাররা বিপিএলে আলো ছড়িয়েছিলেন। জাতীয় দলের হয়েও তারা জ্বলে উঠতে পারেন। মাহমুদউল্লাহ জানান, চাওয়া থাকবে ওদের ওপর যত কম চাপ দেওয়া যায়। ওদেরকে নিজেদের মেলে ধরার সুযোগটা দেব। সেটা ছোট্ট কোনো তথ্য ভাগাভাগির মাধ্যমে হোক, উপস্থিত বুদ্ধির মাধ্যমে হোক বা যে কোনোভাবে। দলে অভিজ্ঞ ক্রিকেটারও বেশ কজন আছেন। সবাই মিলে চেষ্টা করব যেন আমরা সেরা ক্রিকেট খেলতে পারি।

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ভয়হীন ক্রিকেট খেলতে হয় বলে মনে করেন মাহমুদউল্লাহ। সবাইকে ইতিবাচক থাকতে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। কেননা ত্রিদেশীয় ও টেস্ট সিরিজে প্রত্যাশিত ফল পায়নি বাংলাদেশ। তবে টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিয়ে আশাবাদী টাইগাররা। মাহমুদউল্লাহ জানান, দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়াবে বাংলাদেশ।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ডট বল একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। মাহমুদউল্লাহ বলেন, টি-টোয়েন্টিতে ডট বলের পারসেন্টেজ অনেক বেশি প্রভাব ফেলে। যত কম হয়, তত ভালো। ডট বল না খেলে যদি সিঙ্গেল নেওয়া যায় বা প্রান্ত বদলানোয় মনোযোগ দিতে পারি, তা হলে খুব ভালো হয়। তিনি আরও বলেন, টি-টোয়েন্টিতে সফল সব দলের মাঝেই ব্যাপারটা থাকে। যাদের ডট বলের হার কম থাকে, তাদের সফলতার হার বেশি থাকে। আমাদেরও সেই চেষ্টা থাকবে। আগে উইকেট নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের উইকেট নিয়ে কি চিন্তিত বাংলাদেশ? মাহমুদউল্লাহ জানান, উইকেট নিয়ে বেশি চিন্তা করতে চান না তারা। কেননা এটা বাড়তি চাপ হতে পারে। ভালো ফলের জন্য উইকেট ও কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে চান তারা। আগের সিরিজের ব্যর্থতা ঘোচাতে মাঠে নামবে বাংলাদেশ।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
close