রোনালদোর যত অর্জন

  ক্রীড়া ডেস্ক

১২ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১২ জুলাই ২০১৮, ০৯:৪১ | প্রিন্ট সংস্করণ

নয় বছর আগে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে রিয়াল মাদ্রিদে পাড়ি জমান পর্তুগিজ যুবরাজ ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এর পর স্পেনের ক্লাবের হয়ে রাজত্ব করেন নয় বছর। এবার রোমান সাম্রাজ্যে নিজের আধিপত্য বিস্তার করতে ইতালিয়ান লিগ সিরি এ’র জুভেন্টাসে নাম লিখিয়েছেন তিনি।

১০৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে সিআরসেভেনকে দলে নিয়েছে জুভেন্টাস। এ মৌসুম থেকে জুভেন্টাসের জার্সি গায়েই মাঠ মাতাবেন রোনালদো। নিত্যনতুন চ্যালেঞ্জ নিতে ভালোবাসেন রোনালদো।

ইতোমধ্যেই রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে সম্ভাব্য সব ট্রফিই জয় করেছেন তিনি। তাই এবার নতুন চ্যালেঞ্জের খোঁজেই জুভেন্টাসে পাড়ি জমিয়েছেন রোনালদো। রিয়াল মাদ্রিদ থেকে রোনালদোর জুভেন্টাসে যাওয়ার বিষয়টি শতাব্দীর অন্যতম চমকে দেওয়া দলবদল বলে আখ্যায়িত করেছে স্পেনের মিডয়াগুলো।

২০১৭-১৮ মৌসুমে ৭৫.৩ মিলিয়ন ইউরোতে গঞ্জালো হিগুয়েনকে কিনেছিল তুরিনের দলটি। এটাই ছিল জুভেন্টাসের সর্বোচ্চ ট্রান্সফার ফি। সে হিসেবে রোনালদোই জুভদের ইতিহাসের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড়। ২০০৯ সালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে ৮০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে বার্নাব্যু শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন পর্তুগিজ যুবরাজ।

আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে স্প্যানিশ জায়ান্ট কর্তৃপক্ষ জানায়, ‘ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো সব সময় রিয়াল মাদ্রিদের জন্য প্রতীক হয়ে থাকবেন। রিয়াল মাদ্রিদ ধন্যবাদ জানাতে চায় এমন একজন ফুটবলারকে যিনি নিজেকে বিশ্বের সেরা হিসেবে প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন। তিনি আমাদের দলের এবং বিশ্ব ফুটবলের ইতিহাসের উজ্জ্বল সময়ের চিহ্ন এঁকেছেন। রিয়াল মাদ্রিদ সব সময়েই তোমার ঘর।’

নয় বছরে রিয়ালের জার্সিতে ৪৩৮ ম্যাচে করেছেন ৪৫১ গোল। একে একে ভেঙেছেন সব কিংবদন্তির রেকর্ড। স্প্যানিশ ক্লাবটির হয়েই চারটি ব্যালন ডি’অরও জয় করেন পর্তুগালের অধিনায়ক। মাদ্রিদের দলটির হয়ে মোট ১৬টি ট্রফি জিতে নেন।

বিদায়বেলায় আবেগাপ্লুত রোনালদো ভক্তদের উদ্দেশে চিঠিতে লিখেছেন, ‘আমি দীর্ঘ সময় ধরে ভেবেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। নতুন কিছু শুরু করার সময় এসেছে। আমি এ জার্সি ছেড়ে যাচ্ছি কিন্তু যেখানেই থাকি না কেন এই ক্লাব (রিয়াল মাদ্রিদ) ও সান্তিয়াগো বার্নাব্যু আমার অংশ হয়ে থাকবে।’

রিয়াল মাদ্রিদে কাটানো দিনগুলোর স্মৃতিচারণ করে লিখেছেন, ‘এখানে নয়টা বছর খুবই চমৎকার কেটেছে। আমার জন্য সময়টা রোমাঞ্চকর ছিল। সেই সঙ্গে কঠিনও ছিল। কারণ রিয়াল মাদ্রিদ খুবই চ্যালেঞ্জিং একটা ক্লাব। তবে আমি খুব ভালো করেই জানি, আমি এখানে দারুণভাবে ফুটবল উপভোগ করেছি। আমি কখনই ভুলব না।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে