সন্তোষ আর শঙ্কা

বিশ্বজুড়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৩ জুন ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৩ জুন ২০১৮, ০০:২৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

কেউ বলছেন, শান্তির পথে সম্ভাবনাময় শুরু। আবার কেউ বলছেন, বিশ্বাস করা কঠিন। ট্রাম্প ও কিমের বৈঠক নিয়ে সন্তোষ ও শঙ্কাÑ দুই রকম প্রতিক্রিয়াই দেখা গেছে বিশ্বজুড়ে। চীনের আনুষ্ঠানিক সংবাদ সংস্থা সিনহুয়া বলেছে, এই বৈঠক কোরীয় উপদ্বীপের পারমাণবিক অস্ত্র ইস্যুর একটি রাজনৈতিক সমাধানের আশা তৈরি করেছে। তবে তারা বলে, দুই দেশের বহু দিনের বৈরিতা ও অবিশ্বাসের মানসিকতা মুছে ফেলে সৌহার্দ্যরে পথে নিয়ে যাবে তেমনটা কেউ আশা করছে না। পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত উপদ্বীপ গঠন, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে শান্তি প্রতিষ্ঠা করে উন্নয়নের পথে যাত্রার জন্য প্রয়োজন জ্ঞান ও ধৈর্য।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে বলেছেন, ‘আমি ট্রাম্পের নেতৃত্ব ও প্রচেষ্টাকে শ্রদ্ধা করি। চেয়ারম্যান কিম যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তাকে আমি সমর্থন করি। কোরীয় সমস্যা সমাধানে যুক্তরাষ্ট্র, চীন, রাশিয়া ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে জাপানও একযোগে কাজ করবে।’

ইইউ এ বৈঠককে ‘খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও দরকারি’ পদক্ষেপ বলে অভিহিত করেছে। তারা বলেছে, পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত কোরীয় উপদ্বীপের আশা জেগে উঠেছে। রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, ‘আমরা সই হওয়া পত্রটা দেখিনি। কিন্তু এই সাক্ষাৎ অবশ্যই ইতিবাচক।’ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মের এক মুখপাত্র বলেছেন, উত্তর কোরিয়া যে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছে, এতেই বোঝা যায় যে, দেশটি পরিবর্তনের বার্তা বুঝতে পেরেছে। তবে ইরান এ বৈঠকের সফলতা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে। তারা বলছে, মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বিশ্বাস করা বোকামি হবে। দেশটির প্রেসিডেন্টের এক মুখপাত্র বলেন, ‘আমরা জানি না, ঠিক কী ধরনের লোকের সঙ্গে সমঝোতায় রাজি হচ্ছেন কিম।’ তেহরান এর আগেও যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছিল।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে