পাকিস্তানে নির্বাচনে সেনা হস্তক্ষেপের অভিযোগ

বিবিসির সাক্ষাৎকার নিয়ে তুমুল বিতর্ক

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২০ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ২০ জুলাই ২০১৮, ০০:৪৪ | প্রিন্ট সংস্করণ

পাকিস্তানের শীর্ষ সংবাদমাধ্যম ডনের প্রধান বলেছেন, দেশের রাজনীতিতে সেনাবাহিনী হস্তক্ষেপ করছে। ডন মিডিয়া গোষ্ঠীর প্রধান নির্বাহী হামিদ হারুন আরও একটি সুনির্দিষ্ট মন্তব্য করেন, সেনাবাহিনী ইমরান খানের দল পিটিআইকে সহযোগিতা করছে। নির্বাচনের মাত্র এক সপ্তাহ আগে এমন মন্তব্যে দেশটির রাজনীতির অঙ্গনে ব্যাপক সমালোচনা চলছে। গতকাল এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।

পাকিস্তানে আগামী ২৫ জুলাই জাতীয় ও প্রাদেশিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এর আগে গত সোমবার বিবিসির সাক্ষাৎকারবিষয়ক অনুষ্ঠান ‘হার্ডটকে’ উপস্থিত হন হামিদ হারুন। সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, সেনাবাহিনী পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমের ওপর শক্তি প্রয়োগ করছে। সেনাবাহিনীকে ‘ডিপ স্ট্রেট’ বর্ণনা করে হামিদ বলেন, তাদের আচরণ এমন যে, সংবাদমাধ্যম যেন তাদের পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে। যদিও পাকিস্তানে রাজনীতিতে সেনা হস্তক্ষেপ নতুন কিছু নয়। ১৯৪৭ সালে স্বাধীনতার পর থেকেই ধারাবাহিকভাবেই সেখানকার সেনাবাহিনী প্রকাশ্যেই নাক গলিয়েছে। নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে সেনাবাহিনী ক্ষমতা ছিনিয়ে নিয়েছে। হারুন বলেছেন, ‘আমি মনে করি এই পর্যায়ে মনে হচ্ছে দ্বিতীয় সারির নেতার সঙ্গে যুক্ত হওয়ার চেষ্টা চলছে এবং জোট সরকার গঠনের চেষ্টা হচ্ছে, যেটা ‘গভীর রাষ্ট্রের’ নির্দেশনায় চলবে।’

ওই সাক্ষাৎকারের পর বেশ খেপেছেন ইমরান খান। এক টুইটার বার্তায় প্রতিক্রিয়ায় তিনি লেখেন, সাক্ষাৎকারটিতে তার দলের বিরুদ্ধে ‘ডনের নির্মম পক্ষপাতিত্ব’ উন্মুক্ত করা হয়েছে। অনেকে বলছেন, সেনাপ্রধানের বিরুদ্ধে তার অভিযোগের জবাব দেওয়ার জন্য হারুনের দৃঢ় প্রমাণ থাকা উচিত। হতাশা প্রকাশ করে একজন বলেন, ‘সেই ছোটবেলা ডনের ভক্ত আমি। কিন্তু হামিদ হারুনের কথা যেন পুরোপুরি নওয়াজ শরিফের কথা। এই বক্তব্যে কোনো প্রমাণ ছাড়াই পাকিস্তানের নির্বাচনকে বিতর্কিত করা হয়েছে।’

এদিকে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর জনসংযোগ অধিদপ্তরের পরিচালক মেজর জেনারেল আসিফ গফুর গতকাল বলেন, নির্বাচনে সেনাবাহিনী কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করবে না। তিনি বলেন, সেনাদের বিরুদ্ধে কিছু অপপ্রচার চলছে; কিন্তু সেগুলো পুরোপুরি ভিত্তিহীন। নির্বাচনের সঙ্গে আমাদের কোনো ধরনের সম্পর্ক নেই।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে