ট্রাম্পের রুশযোগের তদন্ত

দুই দলেই এক সুর

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৯ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ০৯ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:১৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার সম্ভাব্য হস্তক্ষেপের ব্যাপারে যে তদন্ত চলছে, স্পষ্টই তা থামিয়ে দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

রুশযোগের তদন্ত ঠেকাতে ব্যর্থ হওয়ার কারণে অ্যাটর্নি জেনারেল পদ থেকে তিনি জেফ সেশনসকে সরিয়ে দিয়েছেন। এ পদে ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন ওই তদন্তের প্রধান রবার্ট মুলারের অন্যতম কড়া সমলোচক ম্যাথিউ হুইটেকার। এমন রদবদলের ঘটনায় সতর্ক বার্তা শোনা গেছে বিরোধী শিবির এবং ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ পর্যায় থেকে। খবর বিবিসি ও দ্য গার্ডিয়ানের।

কেন বরখাস্ত : ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় বলেছেন, ‘অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ সেশনসকে তার কাজের জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি। তার মঙ্গল কামনা করছি।’ হোয়াইট হাউসকে পাশ কাটিয়ে রুশ সংযোগ তদন্ত থেকে পার পেতে নিজের শীর্ষ আইন কর্মকর্তাদের বারবার সমালোচনা করেছেন ট্রাম্প। সেশনস তেমনই এক সমালোচক ছিলেন। তাকে পদচ্যুত করার হুমকি আগেই দিয়ে রেখেছিলেন ট্রাম্প। আলবামার সাবেক এ সিনেটর তারিখহীন এক পদত্যাগপত্রে লিখেছেন, ‘প্রিয় প্রেসিডেন্ট, আপনার অনুরোধেই আমি পদত্যাগপত্র দাখিল করছি।

কে এই হুইটেকার : অস্থায়ী দায়িত্ব পাওয়া হুইটেকার রুশ তদন্তের সমালোচক। আশঙ্কা করা হচ্ছে, এবার মুলারের ওপর ট্রাম্পের খড়্গ নেমে আসবে। প্রেসিডেন্ট সরাসরি বিশেষ কৌঁসুলিকে বরখাস্ত করতে পারেন না; অ্যাটর্নি জেনারেল তা পারেন। সুতরাং হুইটেকার মুলারকে বরখাস্ত বা রুশ সংযোগ তদন্ত বন্ধ করে দিতে পারেন।

প্রতিক্রিয়া : নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট-দলীয় নেতা ন্যানসি পেলোসি ট্রাম্পের সর্বশেষ সিদ্ধান্তকে ‘অন্ধ আক্রমণ’ বলে অভিহিত করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘ট্রাম্প যে মুলারের নেতৃত্বে চলমান তদন্তকে খাটো করে দেখেন এবং তা বন্ধ করতে উদ্যত, তার সর্বশেষ এ সিদ্ধান্তে সেটাই প্রমাণ হয়।’ রিপাবলিকান দলের শীর্ষ দুই নেতা সিনেটর সুসান কলিনস ও মিট রমনি বলেছেন, কোনোভাবেই রুশ তদন্তে বাধা দেওয়া যাবে না। ডেমোক্র্যাট-দলীয় সিনেটর চাক স্কামার বলেছেন, ‘এটাই প্রমাণ হয় যে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিশ্চয়ই কিছু একটা লুকাতে চাচ্ছেন।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে